মহালছড়িতে উপসর্গ ছাড়া ২ করোনা রোগী

খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে সর্বপ্রথম করোনা ভাইরাস জনিত কোন উপসর্গ ছাড়া ২ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। ২ জন করোনা রোগীর মধ্য একজন মনাটেক গ্রামের ২৪ বছর বয়সের পুরুষ আর একজন ক্যায়াংঘাট গুছগ্রামের ৫৫ বছর বয়সী এক নারী। মহালছড়ি উপজেলা স্যানিটারী ইন্সপেক্টর সুরেশ চাকমা বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন।

সূত্রে জানা যায়, মনাটেক গ্রামের যে লোকটির করোনা শনাক্ত হয়েছে সে গত ১৯ এপ্রিল ঢাকার সাভার হতে নিজ বাড়িতে আসেন। সেখান থেকে আসার পর ২১ দিন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন অবস্থান করার সময় গত ২৭ এপ্রিল তাঁর নমুনা সংগ্রহ করা হয়। গত ১০ মে কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ হয়। সুস্থ হিসেবে ১১ মে মহালছড়ি স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে তাকে ছাড়পত্রও দেওয়া হয়। ছাড়পত্র দেয়ার ১ দিনের ব্যবধানে অর্থাৎ গত ১৩ মে তাঁর করোনা ভাইরাস পজিটিভ রিপোর্ট চলে আসে।

রোগীর পরিবারের সাথে এবং স্থানীয়দের মাধ্যমে জানা যায়, তিনি সুস্থ অবস্থায় নিজ পরিবারের জমির পাকা ধান তোলা কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

অন্যদিকে ক্যায়াংঘাট গুচ্ছগ্রাম হতে ৫৫ বছর বয়সী যে মহিলার শরীরে করোনা ভাইরাস পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেছে সে মহিলাটি গত ২০ বছর যাবত হাঁপানি রোগে ভুগছেন। শ্বাসকষ্ট জনিত রোগ নিয়ে সে গত ২৭ এপ্রিল মহালছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে আসলে তাঁর নমূনা সংগ্রহ করা হয়। নমুনা সংগ্রহের ১৫ দিন পর গত ১৩এ তাঁর করোনা ভাইরাসের পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো: আলমগীর জানান, মহিলাটির কোন করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নেই এবং তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন।

মহালছড়ির ২জন করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার বিষয়টি নিয়ে মহালছড়ি উপজলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াংকা দত্ত বলেন, করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিদের দ্বিতীয় বার নমুনা সংগ্রহ করে ফের পরীক্ষাগারে পাঠানো হবে। আতঙ্কিত না হয়ে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানান তিনি।

আরও পড়ুন
Loading...