মাটিরাঙ্গায় বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই

উৎসব ছাড়াই খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় ২০২২ সালের নতুন বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিলেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহি অফিসার ও মাটিরাঙ্গা বনশ্রী বিদ্যানিকেতনের পরিচালনা কমিটির সভাপতি মিজ তৃলা দেব।
আজ শনিবার (১জানুয়ারি) সকালে মাটিরাঙ্গা বনশ্রী বিদ্যানিকেতনে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বছরের প্রথম দিনে নতুন বই তুলে দেন তিনি।

এসময় মাটিরাঙ্গা বনশ্রী বিদ্যানিকেতনের প্রধান শিক্ষক মো.আবু বক্কর ছিদ্দিক, আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড এর ম্যানেজার মো.কামাল সহ অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।

করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় বছরের প্রথম দিন সমষ্টিগতভাবে বই বিতরণ না করে ৬ষ্ট থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত প্রতিটি শ্রেণির শিক্ষার্থীদের তিন ভাগে ভাগ করে মোট ১২ দিনে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য শ্রেণিতে ধাপে ধাপে বই বিতরণ করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

এদিকে বছরের প্রথম দিনে নতুন বই হাতে পেয়ে উচ্ছসিত শিক্ষার্থীরা। নতুন মলাটের গন্ধ শুকছেন অনেকে। এছাড়া ও নতুন বই খুলে দেখতে শুরু করেন তারা।

মাটিরাঙ্গা বনশ্রী বিদ্যানিকেতনের প্রধান শিক্ষক মো.আবু বক্কর ছিদ্দিক শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি পারিবারিক শিক্ষা অর্জন বাধ্যতামুলক মন্তব্য করে বলেন, শিক্ষা ব্যক্তিগত বিকাশ ও সামাজিক উন্নয়নের সবচেয়ে শক্তিশালী মাধ্যম। শিক্ষার্থীদের নিয়মিত প্রতিষ্ঠানে পাঠানো এবং প্রতিদিনের পড়া প্রতিদিন আয়ত্ব করার জন্য শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের যত্নবান হতে হবে।

শিক্ষার্থীকে নিয়মিত এবং মন দিয়ে পড়াশুনা করার কথা জানিয়ে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহি অফিসার ও মাটিরাঙ্গা বনশ্রী বিদ্যানিকেতন এর পরিচালনা কমিটির সভাপতি মিজ তৃলা দেব বলেন, করোনা অতিমারির মধ্যে বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছে দেয়া সরকারের পক্ষে একটা বড় চ্যালেঞ্জ। করোনার দীর্ঘ সময়ে লেখাপড়ার ক্ষতি পুষিয়ে আনতে শিক্ষার্থীদের মনযোগ দিয়ে পড়াশুনা করতে হবে।

একই সময়ে বিভিন্ন শ্রেণির শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহি অফিসার ও মাটিরাঙ্গা বনশ্রী বিদ্যানিকেতন এর পরিচালনা কমিটির সভাপতি মিজ তৃলা দেব।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।