মুনলাই পাড়ায় ৫১ বছর পর বিদ্যুৎ

বাংলাদেশ স্বাধীনতার ৫১ বছর মাথায় বিদ্যুৎ সঞ্চালনের লাইন পেতে যাচ্ছে- বান্দরবানের রুমা সদর ইউনিয়নের মুনলাই পাড়াবাসীর।

বঙ্গবন্ধুর শতবর্ষ জন্ম বার্ষিকী উদযাপনের সময়কাল ও পাড়া প্রতিষ্ঠার ৪১ বছরে ৬৫ পরিবারের বসবাস মুনলাই পাড়ায় বিদ্যুৎ সঞ্চালনের লাইন সংযোগের বিষয়টি এক অবর্নণীয় সুসংবাদের কথা মুনলাই পাড়াবসীর সবার মুখে মুখে।
ইতোমধ্যে বৈধভাবে সংযোগ নিতে পাড়ার ৬৫পরিবারের মধ্যে এক তৃতীয়াং পরিবার টাকাও জমা দিয়ে দিয়েছে।
তার সাথে চলছে পরিস্কার ও পার্বত্য মন্ত্রী আগমণের তাঁকে স্বাগত জাসানোর প্রস্তুতিও। এসব কথ জানিয়েছে মুনলাই পাড়াবাসী।

পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি তাঁর সরকারী সফরে এসে আজ ১১ফেব্রুয়ারী( শুক্রবার) মুলাই পাড়া বিদ্যুৎ সঞ্চালনের লাইনটি উদ্বোধন করার কথা। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিদ্যুতায়ন প্রকল্পের আওতায় লাইনটি দেয়া হচ্ছে।

এ প্রতিবেদক বুধবার বিকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখেন মনলাই পাড়ার মাঝখান দিয়ে বিদ্যুতের খাম্বা ও তার চলে গেছে বগালেক রাস্তায়। লাইনটি থানা পাড়া হতে চুংচয় রেস্টুরেন্ট পর্যন্ত বিস্তৃত।

মুনলাই পাড়া ঘুরতেই গিয়ে কথা হয় এই পাড়ার প্রতিষ্ঠার উদ্যোক্তা ও প্রবীন রিয়ালদৌ বম(৭১)এর সঙ্গে। তিনি বলেন ১৯৮০ সালের দিকে প্রতিষ্ঠা করা হয় ৫টি পরিবার নিয়ে। বর্তমানে মুনলাই পাড়ায় ৬৫টি পরিবারের লোকজন বসবাস করছে। রুমা সদর থেকে মাত্র পাঁচ কিলোমিটার দুরত্ব হলে বিদ্যুতের আওতায় ছিলনা। এই পাড়া কারবারীসহ দুইজন বিদ্যুত সংযোগের লাইনের জন্য যোগাযোগ করতে গিয়ে এক দালালের খপ্পরে পড়ে ২০হাজার টাকাও খুঁইয়েছিল। ওই টাকা পাড়াবাসী সবার থেকে উত্তোলন করা ছিল। এটি অবশ্য ১০থেকে ১২ বছর আগের ঘটনা। তারপর আর বেশ কয়েক বছর যোগাযোগ করা হয়নি। তবে বিদ্যুতের চাহিদা ও গুরুত্ব বাড়তেই থাকে। এবার বিদ্যুত সঞ্চালেনর লাইন উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। তাই এটি হবে মুনলাই পাড়া প্রতিষ্ঠার ৪২ বছরে।

আরো কথা বলেন – বয়স্ক বৃদ্ধা রুয়াতজিং বম(৬২), থোয়াইলিয়ান বম(৬৬)।

প্রবীন এই দুইজনও ১৯৮০ সালে পাড়া প্রতিষ্ঠা শুরু থেকে ছিলেন। ৪০ বছর পরে হলেও বিদ্যুৎ সংযোগ হচ্ছে – এতে কী রকম যে খুশি তা বলতে পারবোনা। বলেন, গ্রীস্মকালে গরমে সিলিং ফ্যান ঝুলবে, ফ্রিজে অনেক কিছু রাখতে পারবো। মন চাইলে ফ্রিজ থেকে নিয়ে তাজা খেতে পারবো।

তবে ওইসময় রসলিম ময় বম(২৭) নামে এই নারী বলেন বিশেষ করে রাতেও মেয়েরা তাত বুননের কাজ করার সুবিধা হবে। চুলাই রান্না করলে দেখে থাকতে হয়। এখন রাইস কুকারে ভাত বসাই দিয়ে অন্য কাজও করতে পারবো বলে জানালেন রসলিমময় বম।
লমজুয়াল বম(৩৫) বলেন বাসায় বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য মিটারের জন্য এর মধ্যে টাকা জমা দিয়েছেন। বাসায় সোলার প্যানেল থাকলেও ব্যবহারের ক্ষেত্রে সীমিত আকারে ব্যবহার করতে পারে। তবে বিদ্যুৎ সংযোজিত হলে রঙিস টেভি, ফ্রিজ সহ অনেক কিছু কাজের ক্ষেত্রে বিদ্যুতের সাহায্যে নতুনত্ব প্রযুক্তি ব্যবহার করা যাবে।

মুনলাই পাড়া পরিচালনা কমিটি সাধারণ সম্পাদক রবেন বম বলেন মুনলাই পাড়ায় বিদ্যুৎ সংযোগের পর কোনো পরিবার যাতে অবৈধভাবে সংযোগ না নেয়, এ বিষয়ে পাড়ার মধ্যে কথা হয়েছে। তিনি বলেন মুনলাই পাড়ায় ৬৫পরিবার হয়তো একসাথে মিটার কেনা সম্ভব হবে না, তবে অবৈধভাবে চুরি করে সুযোগ না নিয়ে বাড়ির পার্শ্ববতী বা নিকটতম আত্মীয়ের সাথে যৌথভাবে সংযোগ নেয়া যায় কিনা বিষয়টি ভাববার জন্য পাড়ার সবাইকে বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।