মোবাইলে কথা বলতে দেখা গেলেই জেল জরিমানা : অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জুনায়েদ কায়সার

কাপ্তাই সার্কেল এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জুনায়েদ কায়সার
গাড়ী চালানোরত অবস্থায় মোবাইলে কথা বলতে দেখা গেলেই তাৎক্ষনাৎ চালকের বিরুদ্ধে মামলাসহ জরিমানা করা হবে। অধিকাংশ দূর্ঘটনার জন্যেই চালকের গাড়ী চালানোরত অবস্থায় মোবাইল ফোনে কথা বলাই দায়ী। রাঙামাটি পুলিশিং ফোরাম ও কাপ্তাই ট্রাফিক পুলিশের উদ্যোগে আজ সোমবার কাপ্তাই উপজেলা সদরে পরিবহন চালক ও হেলপারদের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(কাপ্তাই সার্কেল) জুনায়েদ কায়সার একথা গুলো বলেন।
এসময় তিনি আরো বলেন,যেসকল চালকের কাছে ড্রাইভিং লাইসেন্সসহ বৈধ সকল কাগজপত্র পাওয়া যাবে তাদের তাৎক্ষনিক ফুল দিয়ে বরণ করা হবে পুলিশের পক্ষ থেকে।
কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন কাপ্তাই ট্রাফিক পুলিশের টিআই তারক চন্দ্র পাল। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন কাপ্তাই থানার ওসি সৈয়দ মোহাম্মদ নুর, ওসি (তদন্ত) নুরুল আলম। এতে বক্তব্য রাখেন ট্রাফিক পুলিশের টিএসআই জয়নাল আবেদীন, আটোরিক্সা চালক সমিতি বড়ইছড়ি শাখার সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম,চালক সমিতির সাবেক সভাপতি আমির হোসেন,সাংবাদিক নজরুল ইসলাম লাভলু প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক কাজী মোশাররফ হোসেন।
পুলিশ প্রশাসন থেকে চালক-হেলপারদের উদ্দেশ্যে ট্রাফিক আইন ও ট্রাফিক সাইন মেনে চলা, বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত গাড়ী না চালানো,গাড়ী চালানোর সময় মোবাইলে কথা না বলা, মোটর সাইকেল চালানোর সময় চালক ও আরোহী উভয়ের হেলমেট ব্যবহার করা, নেশাগ্রস্থ অবস্থায় গাড়ী না চালানো,একটানা পাঁচঘন্টার অধিক সময় গাড়ী না চালানো উপর গুরুত্ব সহকারে বক্তব্য তুলে ধরেন।
এদিকে চালক সমিতি গাড়ী চালানোরত অবস্থায় কোন চালক মোবাইলে কথা বলেছেন,তা প্রমানিত হলে ওই চালককে তিনমাসের জন্য গাড়ী চালাতে না দেওয়ার ঘোষনা দেন। পরে ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে ট্রাফিক আইন সর্ম্পকে সচেতনতা মূলক লিফলেট বিতরন ও কয়েকজন বৈধ লাইসেন্সধারী চালককে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান পুলিশ ও ট্রাফিক কর্মকর্তাবৃন্দ।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।