ম্রোদের উচ্ছেদ করে হোটেল ও বিনোদন পার্ক নির্মাণ প্রকল্প বন্ধ করতে বিবৃতি

বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড়ের ম্রোদের জমি থেকে উচ্ছেদ করে সিকদার গ্রুপের অন্যতম প্রতিষ্ঠান আর আর হোল্ডিংস্ কর্তৃক পাঁচতারকা হোটেল ও বিনোদন পার্ক নির্মাণ প্রকল্প অবিলম্বে বন্ধ এবং পার্বত্য চট্টগ্রামে কোথাও পর্যটন শিল্প গড়ে তোলার পূর্বে যথাযথ পদ্ধতি অনুসরণ করে স্থানীয় জনগণের স্বাধীন ও পূর্ব সম্মতি নেয়ার আহ্বান জানিয়ে আজ বৃহস্পতিবার (১৯নভেম্বর) এক বিবৃতি দিয়েছে সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্য।

বিবৃতিদাতারা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের মূল সমস্যা হচ্ছে ভূমি সমস্যা। স্বৈরশাসক জিয়াউর রহমানের সময়কালে পার্বত্য চট্টগ্রামের জনমিতি পরিবর্তন করার জন্য সরকারি উদ্যেগে সমতল থেকে ৪ লক্ষাধিক ছিন্নমূল বাঙালিদের সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে পার্বত্য চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। ফলে, পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি সমস্যা প্রকট ও জটিল আকার ধারণ করে। এই ভূমি সমস্যাকে পাশ কাটিয়ে সেখানে উন্নয়নের নামে ভূমি বেদখল করে উপর্যুপরি পর্যটন করার ফলে, পার্বত্য চট্টগ্রামের সমস্যা আরো জটিল হচ্ছে।

কোনো প্রকার নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে পার্বত্য চট্টগ্রামে অঘোষিত ভাবে সেনাশাসন জারি রাখা হয়েছে, আপাতদৃষ্টে মনে হয় তাদের কাজই হচ্ছে পাহাড়ে উন্নয়নের নামে পাহাড়িদের উচ্ছেদ করে ভূমি বেদখলে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ সহযোগিতা করা এবং সর্বোপরি পাহাড়ি জনগণের ন্যায্য গণতান্ত্রিক সংগ্রামকে নানাভাবে বাধাগ্রস্থ করা। এমনকি সিকদার গ্রুপের মত চিহ্নিত দুর্নীতিবাজ বিতর্কিত প্রতিষ্ঠানকেও তারা তথাকথিত উন্নয়নযজ্ঞে সহযোগী বানাতে দ্বিধাবোধ করেনি।

তারা আরো বলেন, সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্য এমন গর্হিত কাজের তীব্র নিন্দা এবং অবিলম্বে পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রধানতম সমস্যা ভূমি সমস্যার যথাযত সমাধান না হওয়া পর্যন্ত স্থানীয় জনগণের স্বাধীন ও পূর্ব সম্মতি ব্যতিরেকে পার্বত্য চট্টগ্রামে উন্নয়নের নামে ভূমি বেদখল করে যেকোনো পর্যটনশিল্প বন্ধের আহ্বান জানায়।

সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্যের পক্ষে এই বিবৃতি প্রদান করেন, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন এর সাধারন সম্পাদক ফয়সাল মাহমুদ, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ এর সাধারণ সম্পাদক সুনয়ন চাকমা, বিপ্লবী ছাত্র যুব আন্দোলন এর দপ্তর সম্পাদক আব্দুল মোমেন, ছাত্র গণমঞ্চ এর সংগঠক সাঈদ বিলাস।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।