রাঙামাটিতে আওয়ামী লীগ থেকে দম্পত্তি বহিষ্কার

দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচনী প্রচারণার কাজে নিজেকে আওয়ামী লীগের নেতা হিসেবে পরিচয় দেয়ায় সাবেক বিলাইছড়ি আওয়ামী যুবলীগ সহ সভাপতি সমতোষ চাকমাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়া, তার সহধর্মিনী উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য শ্রাবণী তংচঙ্গ্যা নিজের স্বামীর হয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয়ায় তাকেও বহিস্কার করা হয়েছে।

গত রবিবার (৭ নভেম্বর) উপজেলা আওয়ামী লীগ তাদের বিষয়ে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়। পরদিন (আজ) সোমবার এ সংক্রান্ত প্রেসবিজ্ঞপ্তি গণমাধ্যমের হাতে আসে।

দলীয় সূত্র জানায়, বিলাইছড়ি উপজেলার কেংড়াছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাম চরন মার্মা (রাসেল) কে নৌকা প্রতীকে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেয় আওয়ামী লীগ। এদিকে, দল থেকে অব্যাহতি নেয়া সাবেক বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সহ সভাপতি সমতোষ চাকমা চেয়ারম্যান পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্ধিতা করার ঘোষণা দিয়ে নির্বাচনী প্রচারনা কাজে নিজেকে আওয়ামী লীগ নেতা দাবি করেন। একই সাথে সমতোষ চাকমার স্ত্রী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শ্রাবণী তংচঙ্গ্যা নিজের স্বামীর হয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিলে দলের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হলে তাকে দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অভিলাষ তংচঙ্গ্যা ও সাধারণ সম্পাদক এস এম শহীদুল ইসলাম যৌথ বিবৃতিতে জানান, নৌকা প্রতিকের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সমতোষ চাকমা ২০১৭ সালে উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেছিলেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক হাজী মোঃ মুছা মাতব্বর জানান, বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সুপারিশে দুইজনের মধ্যে সমতোষ চাকমা আওয়ামী লীগের কেউ নন এবং দলে থেকে স্বামীর হয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর অভিযোগে শ্রাবণী তংচঙ্গ্যাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে, নির্বাচনে দলের কেউ বিদ্রোহী প্রার্থী হলে বা দলের বিরুদ্ধে কাজ করলে তিনি সরাসরি দল থেকে বহিষ্কার হবেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।