রাঙামাটিতে দুটি ট্রাকে আগুন, যানবাহন চলাচল বন্ধ

রাঙামাটিতে ট্রাকে আগুন দেওয়ার প্রতিবাদে মালিক শ্রমিকরা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে
রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় চাঁদার দাবীতে মালভর্তি ট্রাকে আগুন দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার ভোর ৫ টার দিকে উপজেলার বেতছড়ির ১৮ মাইল-কাঠালতলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে রাঙামাটিতে অভ্যন্তরীণ সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে এবং পরিবহন সম্পর্কিত সকল সংগঠনের মালিক শ্রমিকরা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করছে।

মঙ্গলবার সাপ্তাহিক মহালছড়ি বাজার থাকায় বাজার ব্যবসায়ীরা চট্টগ্রাম থেকে পাইকারী মালামাল ক্রয় করে চারটি ট্রাকে করে বিভিন্ন মালামাল রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়ক হয়ে মহালছড়ি বাজারে নিয়ে আসছিলো। গাড়িগুলো নানিয়ারচরের বেতছড়ির ১৮ মাইল-কাঠালতলী এলাকায় পৌঁছালে সন্ত্রাসী গাড়িগুলোকে থামিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

গাড়ী চালকরা মহালছড়ি বাজারের মালামাল পরিবহনের গাড়ী জানালে তাদের কাছে চাঁদা দাবী করা হয়। ড্রাইভাররা চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় সন্ত্রাসীরা চট্টমেট্রো ট- ১১০৭৪১ এবং চট্টমেট্রো ট- ১১২০৬৬ নম্বরের দুইটি ট্রাকে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং ট্রাকে থাকা চালক এবং ব্যবসায়ীদের মারধর করে। এতে মহালছড়ি বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী প্রকাশ আচর্য, কামাল হোসেন, মুন্সী মিয়াসহ কয়েকজন আহত হয়েছে। যাওয়ার সময় সন্ত্রাসীরা ২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে বলেও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে খবর পেয়ে মহালছড়ি সেনা জোন কমান্ডার লে. কর্নেল হুমায়ুন কবীরের নেতৃত্বে সেনা সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌছে, একই সময় মহালছড়ি থানা থেকে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরাও ঘটনাস্থলে পৌছালেও আগুন নেভাতে পারেনি। তবে ঘটনার পর সকাল সাড়ে আটটার দিকে রাঙামাটি থেকে অগ্নি নির্বাপন দল ঘটনাস্থলে পৌছায়। কিন্তু ততক্ষণে সম্পূর্ণ ট্রাক ও মালামাল ভস্মিভূত হয়ে গেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে মহালছড়ি বাজার ব্যবসায়ী ও স্থানীয় জনগণ রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ সমাবেশ করছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

রাঙামাটি কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রশিদ জানান, রাঙামাটির পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে।

আরও পড়ুন
Loading...