রাঙামাটিতে পাহাড় ধসে যে ১১জন নিহত হলেন

রাঙামাটিতে পাহাড় ধসে নিহতদের কয়েকজনের লাশ
রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় পাহাড় ধসে সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে ১১জন নিহত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটে বলে রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) তাপস শীল এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
রাঙামাটির জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনর রশিদ পাহাড়বার্তাকে জানান, নানিয়ারচর ইউপির বড় পুল এলাকার সুরেন্দ্র চাকমা (৫৫) রাজা দেবি চাকমা (৫০),সোনালী চাকমা (১৪),সাবেক্ষ্যং ইউপির রমেল চাকমা (১৪),বুড়িঘাট ইউপির ধর্মচরন পাড়ার ফুল দেবী চাকমা (১৪), ইতি চাকমা(৫৫), স্মৃতি চাকমা (২৩), আয়ুব দেওয়ান (১৫), হাতিমার এলাকার রিপেল চাকমা (১৪), রীতা চাকমা (৮) ও ঘিলাছড়ি ইউপির চৌধুরী ছড়া মোনতলা এলাকার বৃষকেতু চাকমা (৬০)।
এনডিসি তাপস শীল জানান, নানিয়ারচর উপজেলার শিকলপাড়া, বড়পুল এবং হাতিমারা গ্রামে পৃথক পৃথক সময়ে পাহাড় ধসে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে উপজেলা প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস,সেনাবাহিনী এবং স্থানীয়রা।
এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ইসলামপুরে ৪৫টি, বগাছড়িতে ৪২টি, এবং বুড়িঘাটে ১টি বসত ঘর পাহাড় ধসে মাটি চাপা পড়েছে। হতাহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক দিদারুল আলম জানান, এ পর্যন্ত ১১জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছে। তিনি আরও জানান, আমরা উদ্ধারকাজে অংশ নিতে দু’টি টিম ঘটনাস্থলে রওনা করেছি।
অপরদিকে, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ত্রিদীব কান্তি দাশ জানিয়েছেন, প্রবল বর্ষনে পাহাড়ের মাটি ধসে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ির সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।