রাঙামাটিতে পুত্রের হাতে খুন হওয়া পিতার লাশ মিললো নদীতে

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার বটতলী ইউনিয়নের কাচালং নদী থেকে সোমবার সকাল ৯টার দিকে পাহাড়ি এক ব্যক্তির গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে বাঘাইছড়ি থানা পুলিশ।
মরদেহটিকে উদ্ধার করার পর পুলিশ প্রাথমিক ভাবে ধারণা করে এ মরদেহটি ওই উপজেলার সাজেক ইউনিয়ন থেকে ভেসে আসতে পারে। তাই মরদেহটির পরিচয় নিশ্চিত করার জন্য পুলিশ সাজেক থানা পুলিশের সহযোগিতা গ্রহণ করে। সোমবার বিকেলে সাজেক থানা পুলিশের একটি টিম বাঘাইছড়িতে আসলে অজ্ঞাত মরদেহটিকে সনাক্ত করা হয়।
সাজেক থানা পুলিশের বরাত দিয়ে বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন জানান, অজ্ঞাত মরদেহটির পরিচয় পাওয়া গেছে। তিনি সাজেক ইউনিয়নের ভাইবোন ছড়ার বাসিন্দা শান্তি লাল চাকমা (৫৫)।
পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান, চলতি বছরের ৬ আগষ্ট সাজেক ইউনিয়নের ভাই বোন ছড়া গ্রামে পারিবারিক কলহের জের ধরে শান্তি লাল চাকমাকে হাত-পা বেঁধে তার পুত্র সোহেল চাকমা (২৫) এবং সহযোগী আলোময় চাকমা (৩৩) মিলে গভীর রাতে গলা কেটে হত্যা করে। ওইদিন রাতে হত্যা করার পর মরদেহটি নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়।
ওই ঘটনায় পুলিশ স্থানীয়দের সহায়তায় খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত শান্তি লাল চাকমার পুত্র সোহেল চাকমা এবং তার সহযোগি আলোময় চাকমাকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করে। আদালতে উভয়ই হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে। এদিকে মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।