রাঙামাটিতে পুলিশ হত্যা মামলার আসামীসহ শিবিরের ৬ নেতাকর্মী আটক

রাঙামাটিতে পুলিশ হত্যা মামলার আসামিসহ শিবিরের ৬ নেতাকর্মী আটক
রাঙামাটিতে নাশকতার অভিযোগে রংপুর জেলায় পুলিশ হত্যা মামলার আসামীসহ ৬ শিবির নেতাকর্মীকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সদস্যরা। সোমবার দুপুর তিনটার দিকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ সাফিউল সারোয়ার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। রবিবার রাত সাড়ে ৯টায় শহরের ডিসি বাংলো পার্ক এলাকা থেকে ডিবি পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে গোপন বৈঠকরত ছয় যুবককে আটক করে।
আটককৃতরা হলেন, লালমনিরহাট জেলার ঢেউটির হাট খামার টাডি এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে হারুর অর রশিদ (৩০), সীতাকুন্ডের মো. খোরশেদ আলমের ছেলে মঞ্জুরুল আলম (১৮), চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির মোহাম্মদপুর এলাকার সিরাজুল আলমের পুত্র মো. ইউসুফ বিন সিরাজ (৩০), রাঙামাটির নানিয়ারচার উপজেলার বুড়িঘাট ইউনিয়নের মৃত: আব্দুল বারেকের ছেলে মো. মোস্তফা কামাল (১৯), লংগদু উপজেলার মাইনীমুখ ইউনিয়নের মো. জামাল উদ্দীনের ছেলে মো. সাখাওয়াত হোসেন (১৬),রাঙামাটির বাসিন্দা এনামুল হকের ছেলে মো. ইরফানুল হক (১৭)।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, সারাদেশে সাম্প্রতিক সময়ে দেশে জঙ্গী তৎপরতা বৃদ্ধি রোধের অভিযানের ন্যায় এ জেলায় জঙ্গী বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় ১৯মার্চ রোববার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাঙ্গামাটির ডিসি বাংলো পার্ক সংলঘœ এলাকায় অভিযান চালিয়ে নাশকতামূলক কর্মকান্ডের সন্দেহে ৬জনকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ কিছু জিহাদী বই উদ্ধার করা হয়। আটক সকলেই শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত। তারা নাশকতার উদ্দেশ্যে পরিকল্পনা করছিলো বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারনা করছে।
তিনি আরও বলেন,আটককৃতদের মধ্যে লালমনিরহাট জেলার হারুন অর রশিদ রংপুর জেলার কারমাইকেল কলেজের ছাত্র শিবিরের সভাপতি ছিলেন। এছাড়া রংপুর জেলার পীরগাছা থানায় ২০১৩ সালে পুলিশ হত্যা মামলায় তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয়া আছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।