রাঙামাটিতে সেনাবাহিনী-ইউপিডিএফ গুলি বিনিময় : অস্ত্রসহ আটক ৫

লংগদু উপজেলায় অস্ত্রসহ আটক সন্ত্রাসীরা
রাঙামাটির লংগদু উপজেলায় সেনাবাহিনী-স্বশস্ত্র সংগঠন ইউপিডিএফ এর মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অস্ত্রসহ ৫ জন আটক হয়েছে বলে জানা গেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সরল চাকমা, নেলসন চাকমা, পূর্ণদেব চাকমা, মঙ্গল কান্তি চাকমা ও নরেশ চাকমা। আটককৃতরা সবাই ইউপিডিএফ এর স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী।
সুত্র থেকে জানা গেছে, শনিবার রাত নয়টায় কাপ্তাই হ্রদের কাট্টলি অংশের পানি পথে একদল সন্ত্রাসী জেলেদের কাছ থেকে অস্ত্রের মুখে চাঁদা আদায় করছিল। এ খবরে লংগদু সেনা জোনের একটি দল ঘটনাস্থলের দিকে রওনা দেয়। সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা সেনাবাহিনীর উপর গুলিবর্ষন শুরু করে। এদিকে সেনাবাহিনী আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়ে। এভাবে দুই পক্ষের মধ্যে আধা ঘন্টার মত গুলি বিনিময় হয়। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে সন্ত্রাসীরা নৌকা থেকে পানিতে ঝাঁপিয়ে পালাবার চেষ্টা করলেও ঘটনাস্থল থেকে ১টি এসএমসি ও ৪টি বন্দুক এবং দুইজন আহতসহ মোট পাঁচজন সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়। বর্তমানে তাদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ এবং তল্লাশী কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।
প্রসঙ্গতঃ গত ১৮ মার্চ বাঘাইছড়ি হত্যাকান্ডের পর খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের নেতৃত্বে অত্র এলাকায় বিভিন্ন আঞ্চলিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল সমূহের দৌরাত্ব রোধ এবং জনমনে শান্তি ও স্বাভাবিক জীবন যাপন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সেনা, পুলিশ ও বিজিবি’র সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনী চিরুনী অভিযান শুরু করেছে। চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারসহ চাঁদাবাজি বন্ধ এবং অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে সন্ত্রাসীদের বিভিন্ন গোপন আস্তানায় হানা দিচ্ছে যৌথবাহিনী।
এদিকে লংগদু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রঞ্জন কুমার সামন্ত জানান, যৌথবাহিনী অভিযানে নেমেছে শুনেছি। ঘটনার বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

আরও পড়ুন
Loading...