রাঙামাটিতে ৮২ হাজার শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ খাওয়ানো হবে

ভিটামিন ‘এ’ এর অভাবজনিত অপুষ্টি ও শিশুর মৃত্যুর হার কমানোর লক্ষ্যে সারাদেশের মতো রাঙামাটিতে ছয় মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী ৮২ হাজার ৪৯৬ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

আজ বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) সকালে শহরের সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন-২০২১ উপলক্ষে সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশনে এ তথ্য জানানো হয়।

আগামী ১১ ডিসেম্বর থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত জেলার ১০ উপজেলা ও ১ পৌরসভার ৫০টি ইউনিয়নের ১৫৯ টি ওয়ার্ডের স্থায়ী ও অস্থায়ীসহ ভ্রাম্যমাণ অতিরিক্ত এক হাজার ৩১৫টি কেন্দ্রে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। যার মধ্যে ছয় থেকে ১১ মাস বয়সী ৯ হাজার ২৫১ জন শিশুকে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ও ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী তিন লাখ ৭৩ হাজার ২৪৫ জন শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

সিভিল সার্জন ডাঃ বিপাশ খীসা জানান, শিশুর মৃত্যুও হার কমানো মুল লক্ষ্য। যেদিন থেকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো শুরু হয়েছে, সেদিন থেকে ২০% মৃত্যুর হার কমে যাওয়ার পাশাপাশি শিশুর অন্ধত্ব থেকে শুরু করে অসুস্থ হওয়ার প্রবনতাও কমে এসেছে। তিনি বলেন, ভিটামিন এ ক্যাপসুল বিষয়ে গুজবে কান দিবেন না। ক্যাপসুল খাওয়ার পর একটু আধটু বমি ভাব হতে পারে। তিনি অভিভাবকদের ভরা পেটে শিশুদেরকে ক্যাপসুল খাওয়ানোর পরামর্শ দেন।

ওরিয়েন্টেশনে বক্তব্য রাখেন দৈনিক গিরিদর্পন সম্পাদক একে এম মকছুদ আহমেদ, রিপোটার্স ইউনিটের সভাপতি সুশীল প্রসাদ চাকমা ও দৈনিক জনকন্ঠের জেলা প্রতিনিধি মোহাম্মদ আলী। ভিটামিন এ ক্যাম্পেইনের উপর প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন ডাঃ গোলাম মোস্তফা।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।