রাঙামা‌টিতে শিক্ষার্থীদের আবাসন ভাড়া মওকুফের দাবি ছাত্র ইউ‌নিয়নের

করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বাসা এবং মেস মালিকদেরকে প্রতি শিক্ষার্থীদের আবাসন ভাড়া মওকুফের দা‌বি করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন রাঙামাটি জেলা সংসদ। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা চেয়েছে সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ।

আজ শনিবার (১৬ মে) বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন রাঙামাটি জেলা সংসদের সভাপতি অভিজিৎ বড়ুয়া এবং সাধারণ সম্পাদক প্রান্ত দেব নাথ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দা‌বি জানান।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, পার্বত্য রাঙামাটি জেলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, নার্সিং ইনস্টিটিউট, সরকারি কলেজ এবং বেসরকারি পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউটসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। শিক্ষার্থী অনুপাতে পর্যাপ্ত নিজস্ব আবাসন ব্যবস্থা না থাকায় এ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আশেপাশের বিভিন্ন বাসা/মেসে ভাড়ায় থেকে অসংখ্য শিক্ষার্থী তাদের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন। আবার অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আবাসন ব্যবস্থা না থাকায় দূর-দূরান্ত থেকে পড়তে আসা শিক্ষার্থীরা বাধ্য হয়ে বাসা-মেসে থাকতে হচ্ছে। কিন্তু করোনার চলমান সংকটে এ সকল শিক্ষার্থীদের বেশিরভাগের পরিবারেরই আয় উপার্জনের উৎস বন্ধ হয়ে আছে। ফলে খাদ্যের চাহিদা মেটাতেই তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। উদ্ভূত পরিস্থিতির মধ্যেও বাসা/মেস মালিকরা আবাসন ভাড়া পরিশোধ করার জন্যে বাড়িতে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের ফোনকলের মাধ্যমে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলছে এবং নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করছে।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে বাসা/মেস মালিকেরা যে আচরণ করছে সেটা অমানবিক। কয়েকমাস ভাড়া সংগ্রহ না করলেও অপেক্ষাকৃত বিত্তবান এসব বাসা এবং মেস মালিকদের বিশেষ অসুবিধা হবে না। কিন্তু যে সকল শিক্ষার্থী বাসায়/মেসে থাকছেন তারা বেশিরভাগই গ্রাম থেকে আসা। তাদের পরিবারের পক্ষে এই সময়ে মেস ভাড়া পরিশোধ করা কোনো মতেই সম্ভব না। অনেকেই খাদ্যাভাবে ভুগছেন। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হলে সেটা আরও তীব্র হবার আশঙ্কা রয়েছে। তাই প্রশাসনকে অবশ্যই এসকল শিক্ষার্থীদের আবাসন ভাড়া মওকুফের ব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে হবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।