রামগড়ে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা

খাগড়াছড়ির রামগড়ে চাইথোয়াই মারমা(৬০) নামে এক ব্যক্তিকে ইট দিয়ে আঘাতের পর গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে।

আজ মঙ্গলবার (৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় পৌর এলাকার মাস্টারপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চাইথোয়াই মারমা বাজারে যাওয়ার সময় বাসার অদূরে রাস্তায় শরীফ পাটোয়ারী (২৫) নামে এক যুবক আকস্মিকভাবে তার উপর হামলা চালায়। যুবকটি প্রথমে ইট দিয়ে আঘাত করে তাকে গুরুতর আহত করে। পরে আহত চাইথোয়াইর গায়ে কেরোসিন ঢেলে দিয়াশলাই জ্বেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এসময় আশেপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. নরেন চৌধুরী জানান,আগুনে চাইথোয়াই মারমার শরীরের ৮০ ভাগ পুড়ে যায়। এছাড়া শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় হাসপাতালের জরুরি বিভাগে তাকে আনা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। পুলিশ শরীফ পাটোয়ারীকে গ্রেফতার করেছে। সে মাস্টারপাড়ার আবু আহমেদ পাটোয়ারীর ছেলে।

নিহতের ছেলে অংশিউ মারমা জানান,শরীফ তাদের প্রতিবেশি। সোমবার রাত সাড়ে ১১টায় শরীফ তাদের ঘরে আগুন দিয়েছিল। এ ঘটনায় আজ মঙ্গলবার তিনি থানায় একটি লিখিত অভিযোগও দেন।

অংশিউ মারমা আরও বলেন,শরীফ অনেকদিন থেকে মানসিক রোগী হিসেবে জানি।

হত্যার ঘটনায় আটক শরীফের বাবা আবু আহমেদ পাটোয়ারী জানান, তিনি সন্ধ্যায় ফেনী থেকে রামগড়ে এসে ঘটনাটি শুনেছেন। তবে তার ছেলে ঘটনার সাথে জড়িত কি না তা তিনি জানেন না। আবু আহমেদ আরও বলেন, তার ছেলেটি গত ২ বছর যাবৎ মানসিক রোগে ভুগছে।

রামগড় থানার ওসি(তদন্ত) রাজীব কর জানান, হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে শরীফ পাটোয়ারীকে গ্রেফতার করেছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি পাঠানো হচ্ছে। এ ব্যাপারে মামলা রুজুর প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।