রামগড়ে ইউপি মেম্বারের বিরুদ্ধে স্বামী শ্বশুর শাশুড়ীর সহায়তায় ধর্ষণের অভিযোগ

খাগড়াছড়ির রামগড়ে এক গৃহবধূকে তার স্বামী ও শ্বশুর শাশুড়ীর সহায়তায় স্থানীয় ইউপি মেম্বারের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে ইউপি মেম্বারসহ স্বামী ও শ্বশুর শাশুড়ীর নামে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

আজ বুধবার(১০মার্চ) ডাক্তারি পরীক্ষা ও ২২ ধারায় জবানবন্দির জন্য ভিকটিমকে খাগড়াছড়ি জেলা সদরে পাঠানো হয়েছে।

মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়,রামগড় উপজেলার পাতাছড়া ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ড মেম্বার মহিউদ্দিন একই এলাকার জনৈক গৃহবধূকে বিভিন্ন সময়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, ধর্ষণে ইউপি মেম্বার মহি উদ্দিনকে ভিকটিমের স্বামী মোঃ ফয়েজ, শ্বশুর ওমর ফারুক ও শাশুড়ী নুরজাহান বেগম সহায়তা করেন। বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার লোভে এ কাজে মেম্বারকে তারা সহায়তা করে। গত ৫ মাস আগে ফয়েজের সাথে ভিকটিমের বিয়ে হয়।

ভিকটিমের স্বজনরা অভিযোগ করেন, গত ৫ মার্চ তারা রামগড় থানায় মামলা দিতে গেলে পুলিশ মামলা গ্রহণে গড়িমসি করে। এক পর্যায়ে এজাহার গ্রহণ না করে তাদেরকে ফিরিয়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে থানার ওসি(তদন্ত) মোঃ মনির হোসেন বলেন, এজাহারটি ত্রুটিপূর্ণ হওয়ায় তাদেরকে পরামর্শ দেয়া হয়েছিল এটি সঠিকভাবে লিখে আনার জন্য।

তিনি বলেন,মঙ্গলবার (৯মার্চ) মামলা রুজু করা হয়েছে। তিনি বলেন, ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে ইউপি মেম্বার মহি উদ্দিনসহ স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ীকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১)/৩০ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন।

ওসি(তদন্ত) আরও বলেন, ২২ ধারায় জবান বন্দি ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে বুধবার (১০ মার্চ) খাগড়াছড়ি জেলা সদরে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন,আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান চলছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।