রামগড়ে পাহাড়ি গ্রামে আয়োজিত সমাবেশে হামলার অভিযোগ

খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলার যৌথ খামার এলাকায় পাহাড়ি সংগঠনগুলোর মিছিল
খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলার যৌথ খামার এলাকায় বুধবার সকালে পাহাড়ি সংগঠনগুলোর ব্যানারে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে বাধা দেয়ার অভিযোগ করেছে সংগঠনগুলোর নেতারা। সমাবেশ আয়োজনের প্রস্তুতি নেয়ার সময় সমাবেশে যোগ দিতে আসা লোকজনকে বাধা ছাড়াও যৌথ বাহিনীর হামলায় জ্যোতিন্দ্র ত্রিপুরা, অমল ত্রিপুরা নামের দুই ব্যক্তি আহত হবার দাবি করেছে সংগঠনগুলোর নেতারা।
পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি তপন চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডিারেশন (এইচডব্লিউএফ)-এর সাভপতি দ্বিতীয়া চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সধারণ সম্পাদক (ডিওয়াইএফ)-এর পলাশ চাকমা আজ ৩১ জানুয়ারী সংবাদপত্রে প্রদত্ত এক যুক্ত বিবৃতিতে খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলায় পাহাড়ি গ্রামে হামলা ও ভাঙচুরের বিরুদ্ধে সমাবেশ আয়োজনের প্রাক্কালে হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। এবং এ হামলার সাথে জড়িতেদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
এদিকে বুধবার বিকেলে খাগড়াছড়ি সদরের স্বনির্ভর বাজার থেকে রামগড়ে ভূমি বেদখলের ষড়যন্ত্র, সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি জেলা ও উপজেলা পরিষদ হয়েছে চেঙ্গী স্কোয়ার থেকে ঘুুরে এসে স্বনির্ভর বাজারের পাশে সমাবেশ করে। জেলা দপ্তর সম্পাদক সমর চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের খাগড়ছড়ি জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রুপেশ চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের জেলা সভাপতি দ্বিতীয়া চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি সদর থানার সম্পাদক অতুল চাকমা এবং পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক রুপেশ চাকমা।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।