রামগড়ে পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে ৭ পরিবার

খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় পৌরসভার বৈদ্য টিলা এলাকায় পাহাড় ধসের ঘটনায় ৪-৫টি বসতবাড়ি কমবেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঐ এলাকায় মারাত্মক ঝুঁকির মুখে থাকা ৭ টি পরিবারকে নিরাপদ স্থানে সরানোর এখনো কোন পদক্ষেপ নেয়নি কেউ।

গত দুই দিনের টানা বর্ষণে বৃহষ্পতিবার (৩০জুন) গভীর রাতে পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের বৈদ্য টিলা এলাকায় বসতবাড়িতে এ পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটে। এতে বসতঘরের ক্ষয়ক্ষতি হলেও কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, প্রবল অবিরাম বর্ষণে বৃহষ্পতিবার রাত দেড়টার দিকে বৈদ্য টিলায় হঠাৎ পাহাড়ের একাংশ ধসে পড়লে পাদদেশে থাকা মোঃ হানিফ নামে এক ব্যক্তির বসতঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়। টিনের তৈরি ঘরের একাংশ মাটিতে চাপা পড়ে। এ সময় ঘরের লোকজন সজাগ থাকায় তাদের কোন ক্ষতি হয়নি। একই সময় হানিফের পার্শ্ববর্তী বানু বেগম, বেলাল, আলা উদ্দিন, সখিনা বেগমের ঘরসহ ৬-৭টি কমবেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

রামগড় পৌরসভার ৪-৫-৬নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর কনিকা বড়ুয়া জানান, ঐ সাতটি পরিবারের বসতবাড়ি এখন মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে আছে। পুনারায় ভারী বৃষ্টিপাত হলে পাহাড়টির একটি বড় অংশ ধসে পড়তে পারে যে কোন মূহুর্তে। এতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশংকা রয়েছে।

কাউন্সিলর আরও বলেন, তিনি বৃহষ্পতিবার বিকালে ক্ষতিগ্রস্ত বসতবাড়ি সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, ঝুঁকিতে থাকা পরিবারগুলোকে নিরাপদ স্থানে সরানোর ব্যাপারে কেউ পদক্ষেপ নেয়নি। তবে তিনি ঐ পরিবারগুলোকে অন্যত্র সরে যেতে পরামর্শ দিয়েছেন। বিষয়টি তিনি উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে(পিআইও) জানিয়েছেন বলেও জানান।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।