রামগড়ে মাকে হত্যা, পুত্র গ্রেপ্তার

খাগড়াছড়ির রামগড়ে পারিবারিক কলহে ঘর থেকে বের করে দেয়ায় ক্ষুব্দ হয়ে মাকে মাটিতে আছড়ে হত্যা করেছে মো: ইব্রহিম (৩৫) নামে এক যুবক। পুলিশের হাতে আটকের পর মাকে নিজ হাতে হত্যার কথা স্বীকার করেছে ঘাতক পুত্র। শনিবার রাতে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। নিহত রুমা বেগম চৌধুরিপাড়ার বাসিন্দা আব্দুল জলিলের স্ত্রী। ঘাতক ইব্রাহিম তাদের বড় ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রামগড় পৌরসভার চৌধুরিপাড়া এলাকায় শনিবার রাত ১০টার দিকে মো: ইব্রাহিম তার মা মোসাম্মত রুমা বেগম (৪৫)কে মাটিতে আছড়ে হত্যা করে। বৃহষ্পতিবার বকাঝকা করে মা তাকে ঘর থেকে বের করে দিয়েছিলেন। শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সে বাড়িতে এসে মায়ের সাথে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। মা রুমা বেগম টয়লেট থেকে বের হওয়া মাত্র ইব্রাহিম তাকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয়। এরপর সে মাকে উপরে তুলে মাটিতে আছাড় মারতে থাকে। এতে তার নাক, মুখ ও মাথা থেতলে যায়। অধিক রক্তক্ষরণে তিনি ঘটনাস্থলে মারা যান।

আরো জানা গেছে, মাকে হত্যার পর ইব্রাহিম বেহুঁশ হওয়ায় ভান ধরে ঘরের খাটের উপর শোয়ে থাকে। খবর পেয়ে রামগড় থানার ওসি মোহাম্মদ সামছুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে যান। পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে এবং ছেলে মো: ইব্রাহিমকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তার গায়ে পড়নের গেঞ্জিতে রক্ত মাখা ছিল।

এই বিষয়ে ওসি মোহাম্মদ সামছুজ্জামান বলেন, বকাঝকা করে ঘর থেকে বের করে দেয়ায় ক্ষুব্দ হয়ে ইব্রাহিম মাকে মাটিতে আছড়ে হত্যা করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। ওসি জানান, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ আজ রবিবার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।