রুমায় খ্রীষ্টীয় সুসমাচার প্রচারের শতবর্ষ পূর্তিতে ব্যাপক আয়োজন

আনন্দঘন পরিবেশ ও ব্যাপক কর্মসূচির গ্রহনের মধ্য দিয়ে বম ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীদের মধ্যে খ্রীষ্টীয় সুসমাচার প্রচারের শতবর্ষের পূর্তি-২০১৮ উদযাপিত হচ্ছে আজ বুধবার।
এ উপলক্ষে আজ বুধবার(১২ডিসেম্বর)গৃহিত কর্মসূচি অংশ হিসেবে বান্দরবানসহ তিন পার্বত্য জেলার বিভিন্ন বম জনগোষ্ঠীর বসবাসরত পাড়াগুলোতে নিজ নিজ মন্ডলীর উদ্যোগে রেভ: এড্উইন রোনাল্ড এর স্মৃতিস্তম্ভ উৎসর্গ করা হবে।
এর ধারাবাহিকতায় রুমা সদর ইউনিয়নের জাইঅন পাড়াস্থ ইভ্যানজালিক্যাল খ্রীষ্টীয়ান চার্চ(ইসিসি) কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দিনব্যাপি কর্মসুচি হাতে নেয়া হয়েছে।
এ কর্মসুচির মধ্যে রয়েছে- সকাল ৯টায় রেভ:এড্উইন রোনাল্ড এর স্মৃতিস্তম্ভ উৎসর্গ করবেন জাতীয় খ্রীষ্টীয়ান ফেলোশীপ অব বাংলাদেশের সভাপতি বিশপ ড: আলবার্ট পি.মৃধা ও বাংলাদেশ বাইবেল সোসাইটি চেয়ারম্যান বিশপ ফিলিপ পি. অধিকারী।
উৎসর্গানুষ্ঠান শেষে খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের ব্যক্তি ও বিভিন্ন পাড়ার পর্যায়ে পরিবারের সেচ্ছায় সহভাগিতামূলক অর্থায়নে প্রায় ৬৫লক্ষ টাকার ব্যয়ে নির্মিত বমরাম সুসমাচার শতবর্ষ ভবন(১৯১৮-২০১৮) উদ্বোধন করা হবে। এতে প্রথমতলা উদ্বোধন করবেন বিশপ ড: আলবার্ট পি.মৃধা এবং দ্বিতীয়তলা উদ্বোধন করবেন বিশপ ফিলিপ পি.অধিকারী।
পরে ইসিসি কার্যালয় প্রাঙ্গনে বম জনগোষ্ঠীর সুসমাচার সুচনা ও প্রচারে শতবর্ষ পূর্তির তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা সভা। এতে সভাপতিত্ব করবেন ইসিসি চেয়ারম্যান ও প্রধান পৃষ্ঠপোষক রেভা:পাকসিম বুইতিং। এসময় প্রকৌশলী লালচেও সাং বম ও রেভা: লালরেম সাং বমের উপস্থাপনায় বম শিল্পী গোষ্ঠীর পরিশেনে পরিবেশিত হবে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও। এদিকে শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন কমিটি সভাপতি লাল পেকলিয়ান বম জানান বম জনগোষ্ঠীরা তাদের পূর্বপুরুষরা ধর্মীয় বিশ্বাসে প্রকৃতি পূজারি ছিল। কালক্রমে এই বম জনগোষ্ঠীদের মধ্যে ১৯১৮সালে ১২ডিসেম্বর সর্ব প্রথম প্রভ’ য়ীশু খ্রীষ্টের সুসমাচার প্রচার সুচনা করেছিলেন- মিশনারী রেভা: এড্উইন রোনাল্ডস্। এ সুসমাচার শতবর্ষ পূর্তি উদযাপনের মধ্য দিয়ে খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের হৃদয়ে ধারণ করে রাখতেই মিশনারী এড্উইন রোনাল্ডস্ এর স্মৃতিস্তম্ভ ও সুসমাচার শতবর্ষ ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।
অন্যদিকে প্রকৌশলী লালচেওসাং বম জানান,সুসমাচার শতবর্ষ ভবনটি ৭০ফুট দৈর্ঘ্য ও ৩০ফুট প্রস্থে দুইতলা সম্পন্ন প্রায় ৬৫লক্ষ টাকা ব্যয় হতে পারে। তবে এখানে সেচ্ছায় ব্যক্তি শ্রমও দিয়েছে অসংখ্যক নারী-পুরুষ ও যুবারা। এ ভবনের পাশে মিশনারী রেভা: এড্উইন রোনাল্ডস এর স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণও তাঁর পরিকল্পনার নকশায় হয়েছে। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ঈশ্বরের নামে কাজটি করতে পারায় গর্ববোধ ও মনে আনন্দ পান বলে জানালেন প্রকৌশলী লালচেওসাং বম।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।