রুমায় পৃথক ভাবে পালিত হলো শান্তি চুক্তির ২০তম বার্ষিকী

রুমায় পায়রা উড়িয়ে ভলিবল প্রীতি ম্যাচ উদ্বোধন করেন রুমা জোন কমান্ডার লে: কর্নেল মোহাম্মদ সালাউদ্দিন পিএসসি
বান্দরবানের রুমা উপজেলায় রুমা জোন ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি পৃথকভাবে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহনের মধ্য দিয়ে পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২০তম বার্ষিকী পালন করেছে।
এ উপলক্ষে রুমা জোনের আয়োজনে গত শনিবার বিকালে রুমা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ভলিবল প্রীতি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে ভলিবল ম্যাচটি উদ্বোধন করেন রুমা জোন কমান্ডার লে: কর্নেল মোহাম্মদ সালাউদ্দিন পিএসসি। প্রধান অতিথি বলেন, এলাকার উন্নয়ন ও শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে সবাইকে একত্রিত হয়ে কাজ করা খুবই জরুরি। সরকার ও সংশ্লিষ্ট সকলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নের কাজ অনেক এগিয়ে নিয়েছে। তাই শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রেখে চুক্তি বাস্তবায়নে সকলের প্রতি আহবান জানান তিনি। পরে ভলিবল প্রীতি ম্যাচে‘র “পাইন্দু ইউপি একাদশ” বিজয়ী দলকে চাম্পিয়ন ট্রফি বিতরণ করেন।
এসময় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামসুল আলম, পাইন্দু ইউপি চেয়ারম্যান উহ্লামং মারমা, উপজেলা কৃষি অফিসার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান ও রুমা জোনের সেনা কর্মকর্তারা। এর আগে সকালে রুমা জোনের ব্যবস্থাপনায় রুমা সদর ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে মেডিকেল ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। এতে চিকিৎসা প্রদান করেন মেডিকেল অফিসার ক্যাপ্টেন ডা: মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ। ইউপি‘র মিলনায়তনে অপেক্ষমান রোগীদের বাগানে আম গাছে রোগ বালাই প্রতিকার সম্পর্কে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে প্রদর্শন করা হয়। দুপুরে মেডিকেল ক্যাম্পেইন পরিদর্শন করেন রুমা জোন কমান্ডার লে: কর্নেল মোহাম্মদ সালাউদ্দিন পিএসসি। তখন বাগান চাষিদের মাঝে বিনামূল্যে ড্রাগন চারা বিতরন করেন তিনি।
এদিকে জনসংহতি সমিতি‘র রুমা থানা শাখার উদ্যোগে শনিবার বেলা ১১টায় বম কমিউনিটি সেন্টারে এক বিক্ষোভ সমাবেশ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন, বান্দরবান জেলা জনসংহতি সমিতি‘র সিনিয়র সহসভাপতি ও রুমা উপজেলা চেয়ারম্যান অংখোয়াইচিং মারমা। তিনি বলেন, এ আওয়ামী সরকার চুক্তির ২০বছর পূর্তিতে লোক দেখানো ব্যাপকভাবে আয়োজন করলেও চুক্তির মূলধারাগুলো এখনো বাস্তবায়ন হয়নি। শান্তি চুক্তি সম্পাদনকারী এ সরকারের সময়ে পূর্নাঙ্গ বাস্তবায়ন করার আশা প্রকাশ করেন প্রধান অতিথি অংখোয়াইচিং।
রুমা শাখার সভাপতি লুপ্রু মারমার সভাপতিত্বে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম‘র কেন্দ্রীয় কমিটি সদস্য মংশৈপ্রু খিয়াং, মংবাউ কারবারী, জিংআলহ্ বম কারবারী, উপজেলা জেএসএসের সহসভাপতি ক্যসাপ্রু মারমা, ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক চিংশৈথুই মারমা, রেমাক্রী ইউপি শাখার সভাপতি লরেন্স ত্রিপুরা ও গালেঙ্গ্যা ইউপি শাখার সভাপতি অনচন্দ্র ত্রিপুরা প্রমুখ। উপজেলা জেএসএসের সাধারণ সম্পাদক মংমংসি মারমা উপস্থাপনায় আরো বিশেষ অতিথি উপস্থিত হিসেবে ছিলেন পার্বত্য মহিলা সমিতি রুমা উপজেলা শাখার সভাপতি রেমএংময় বম ও সাধারণ সম্পাদক মেয়ইনু মারমাসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
এর আগে সকালে স্থানীয় বম কমিউনিটি সেন্টার প্রাঙ্গন থেকে এক ছয় শতাধিক লোকসমাগমে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি রুমা বাজারসহ এলাকার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। ব্যাপক সংখ্যক অংশগ্রহণে বিক্ষোভ মিছিলটি কমিউনিটি সেন্টারে গিয়ে সমাবেত হয়।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।