রুমায় শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ !

বীর বাহাদুরের অবদান

বান্দরবানের রুমায় একমাত্র উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি রুমাবাসীর স্বপ্ন পূরণে প্রতীক্ষিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিণত হতে যাচ্ছে, রুমা সাঙ্গু সরকারি কলেজ। এ কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা নিজ কলেজে পরীক্ষার কেন্দ্রে এবার ২০২১ সালের আগামী ২ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করবে। এতে নিজ বাসায় থেকে গিয়ে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগটা সৃষ্টি হওয়ার কারনে মহা খুশি অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা।

রুমা সাঙ্গু সরকারি কলেজে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সুইপ্রুচিং মারমা বলেন, প্রথম বারের মতো রুমা সাঙ্গু সরকারি কলেজ কেন্দ্রে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে, এটা রুমাবাসীর জন্য নিঃসন্দেহে সুখবর। এসব সুযোগ সুবিধা পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিংয়ের আন্তরিক সহযোগিতার কারণে সম্ভব হয়েছে বলে উল্লেখ করেন সুইপ্রুচিং মারমা।

তিনি বলেন, আগামি ২ ডিসেম্বর সারা দেশের ন্যায় অনুষ্ঠিতব্য এইচএসসি পরীক্ষায় রুমা সাংগু সরকারি কলেজ কেন্দ্রে তিনটি কলেজ থেকে মোট ১৩৩ জন নিয়মিত- অনিয়মিত শিক্ষার্থী অংশ গ্রহন করবে। তার মধ্যে রুমা সাঙ্গু সরকারি কলেজ থেকে ৫২ জন, থানচি কলেজ থেকে ১৪ জন ও রোয়াংছড়ি কলেজ থেকে ৬৭ জন পরীক্ষায় অংশ নেবে বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সুইপ্রুচিং মারমা। গত মঙ্গলবার (২৩নভেম্বর) বিকালে কলেজ ক্যান্টিনে এক চা চক্রে এসব তথ্য জানিয়েছিলেন তিনি।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সুইপ্রুচিং মারমা বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মামুন শিবলী ও শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষের প্রয়োজনীয় সার্বিক সহযোগিতায় পরীক্ষা অনুষ্ঠানের জন্য ইতোমধ্যে যাবতীয় প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে।

এদিকে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো রুমা সাঙ্গু সরকারি কলেজে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সম্বর্ধনা উপলক্ষে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অন্যদিকে দুর্গম বগালেক মংথোয়াইচিং পাড়ার বাসিন্দা শৈসাচিং মারমা ও আমতলী পাড়ার বাসিন্দা মংথোয়াই বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্র যদি অন্য উপজেলা দুরে কোথাও হত, তবে দরিদ্র পরিবারের টাকা-পয়সা সমস্যার কারণে তাদের সন্তানদের পরীক্ষা দিতে যাওয়া খরচ চালাতে পারত না। ঘরের কাছে পরীক্ষা কেন্দ্র হওয়াতে নিজ ঘরে থেকে নুনের পান্তা ভাত খেয়েও অংশ নিতে পারবে এইচএসসি বোর্ড পরীক্ষায়। এ সুযোগ রুমাবাসীর আশাতীত বলে উল্লেখ করছেন স্থানীয়রা।

পরীক্ষার্থী চম্যাসিং ও সিংমেউ বলেন, পরীক্ষা চলাকালীন খরচের জন্য আর চিন্তা করছি না। কোনো টাকা খরচ না করে নিজ বাসা থেকে গিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারব, এতে আমরা সবাই খুশি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।