রুমা জোনের সম্প্রীতিতে শাশ্বত সাতাশ ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎযাপিত

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা ও বর্নাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বান্দরবানের রুমা সেনা জোনের উদ্যোগে সম্প্রীতিতে শাশ্বত সাতাশ ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎযাপিত হয়েছে।
এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৯শে অক্টোবর) দুপুর একটায় ইউনিট মালল্টিপারপাস সেন্টারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ৬৯পদাতিক ডিভিশন বান্দরবান রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খন্ডকার মো: শাহিদুল এমরান, এএফডব্লিউসি, পিএসসি।

তিনি বলেন, এলাকার শান্তি শৃঙ্খলায় উন্নয়নের শাশ্বত সাতাশ রুমা জোন ভাল কাজ করছেন। এলাকার তথা সাধারণ মানুষের নিরাপত্তায় উন্নয়নের আরো ভাল কাজ করবেন বলে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উল্লেখ করেন রিজিয়ন কমান্ডার।

পরে স্থানীয় ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠী ও সেনাবাহিনীর মধ্যে সম্প্রীতি স্থাপনের দৃষ্টান্তের অংশ হিসেবে রুমা উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক ও উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ এলাকার সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের অংশ গ্রহণের মাধ্যমে এক প্রীতি ভোজে অংশ নেন বান্দরবান রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খন্ডকার মোহাম্মদ শাহিদুল ইমরান। প্রীতি ভোজের পর শিক্ষার্থীদের মাঝে নানা উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

রুমা ৯ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ ইয়াছিন চৌধুরী, রুমা জোনের ভারপ্রাপ্ত জোন কমান্ডার মেজর জোবায়ের শফিক, পিএসসি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সভাপতি উহ্লা চিং মারমা, বান্দরবান জেলা পরিষদের সদস্য জুয়েল বম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান থাংখাম লিয়ান বম,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নু ম্রাউ মারমা,পাইন্দু ইউপি চেয়ারম্যান উহ্লামং মারমা ও অন্য তিন ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন সংগঠনের সামাজিক নেতৃবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
বিকেলে রুমা জোনের মাঠে এক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সন্ধ্যায় পার্বত্য শান্তি চুক্তি পরবর্তী সম্প্রীতির আলোকে স্থানীয় আদিবাসী বিভিন্ন সম্প্রদায়ের শিল্পীগোষ্ঠী ও সেনাবাহিনী যৌথ পরিবেশনায় পরিবেশিত হয় এক মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।