রোয়াংছড়িতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

বান্দরবানের রোয়াংছড়ি লাপাইগয় পাড়াতে অংমেসিং মারমা (৩০) নামে এক নারীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে স্বামী, এমন অভিযোগ করছে স্থানীয়রা । এ ঘটনায় ঘাতক স্বামী ক্যনুঅং মারমা (৩৮) কে আটক করেছে পুলিশ। নিহত ব্যক্তি রোয়াংছড়ি উপজেলা ৩নং আলেক্ষ্যং ইউনিয়নে ৬নং ওয়ার্ড কচ্ছপতলি পাড়া বাসিন্দার থুইসাচিং মারমার (জদিরা) মেয়ে ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান গত সোমবার (২১ জানুয়ারী ২০২০) কচ্ছপতলি পাড়ায় অংমেসিং মারমা, দাদুর মৃত দেহ দেখতে এসেছিলেন। ওই দিন গভীর রাত হয়ে গেলে লাপাইগয় পাড়া নিজ বাড়িতে না ফিরে কচ্ছপতলি বাপের বাড়িতে থাকেন। সে দিন রাতে অনুমান সাড়ে ১০টা দিকে স্বামী ক্যনুঅং মারমা কচ্ছপতলি শ্বাশুড় বাড়িতে এসে স্ত্রী অংমেসিং মারমাকে নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। এতে নিজ বাড়ির পৌছালে স্ত্রী অংমেসিং মারমাকে খুন করেন। পরে নিহতের ঘাতক স্বামী নিজ স্ত্রী মরার খবর পাড়াবাসিকে জানানো হয়। পরে পাড়াবাসিরা অংমেসিং মারমা নিহতের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে জড়ো হয়ে রোয়াংছড়ি থানা পুলিশে খবর দেন। নিহতে সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘাতক স্বামী ক্যনুঅং মারমাকে আটক করে থানা নিয়ে আসে।

নিহত মহিলা অংমেসিং মারমার বাবা থুইসাচিং মারমা অভিযোগ করে বলেন, বিনা কারণে আমার মেয়েকে আমাদের বাড়ি থেকে রাতের আধাঁরে ডেকে নিয়ে ঘাতক স্বামী ক্যনুঅং মারমা খুন করেছে। তাই খুনি ক্যনুঅং মারমাকে কঠিন শাস্তি দাবি করেন।

রোয়াংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: শরিফুল ইসলাম বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে । নিহতের স্বামীকে এরইমধ্যে আটক করা হয়েছে ।
তিনি আরো বলেন অংমেসিং মারমাকে খুন করা হয়েছে বলে নিহতদের পরিবারে দাবি করছেন। তবে নিহত ব্যক্তির গায়ে কোন রক্তক্ষরণ অবস্থা পাওয়া যায়নি। বিস্তারিত ঘটনা তদন্তের পরে জানান যাবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।