লংগদু সহিংসতার প্রতিবাদে বিক্ষোভ অব্যাহত

লংগদু সহিংসতায় প্রতিবাদ বিক্ষোভ
পার্বত্য চট্টগ্রাম জুম্ম শরণার্থী কল্যাণ সমিতি প্রশাসনের প্রচ্ছন্ন ইন্ধনে রাঙামাটি জেলার লংগদুতে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক হামলা এবং সহিংসতার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। সংগঠনটি শুক্রবারের ভয়াবহ ঘটনাকে ১৯৮৯ সনে ৪ মে’র গণহত্যার সমতুল্য বলেও দাবি করেন।
সংগঠনের কেন্দ্রীয় সা: সম্পাদক সন্তোষিত বকুল স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামে স্মরনাতীতকাল থেকে বসবাসরত জুম্মদের অস্তিত্ব সংরক্ষণের জন্য রাজনৈতিক অধিকার, অর্থনৈতিক অধিকার, ধর্মীয় অধিকার, সাংস্কৃতিক অধিকার ও মানবাধিকার নিশ্চিত করার জন্য সাংবিধানিক নিশ্চয়তা প্রয়োজন।
এদিকে লংগদু সদরে পাহাড়ি জনগণের ওপর হামলা, লুটপাট, ৭০ বছরের বৃদ্ধাকে হত্যা ও বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগের ঘটনার প্রতিবাদে এবং সাম্প্রদায়িক হামলার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রামগড় উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম।
শনিবার দুপুরের দিকে রামগড় উপজেলার যৌথখামার এলাকার যাত্রী ছাউনী থেকে মিছিল শুরু করে যৌথখামার বাজার এলাকা প্রদক্ষিণ করে যাত্রী ছাউনীতে সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ রামগড় উপজেলার শাখার সহ-সভাপতি সুরেশ চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম রামগড় উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক সুমন মারমা ও ইউপিডিএফ এর রামগড় ইউনিটের সংগঠক হরি কমল ত্রিপুরা।
এছাড়া শনিবার দুপুর ১২টায় সাজেকের রেতকাবামুখ এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে পাহাড়ি তিন সংগঠন। মিছিলটি রেতকাবা মূখ থেকে শুরু হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বন বিহার গেইটে এসে এক বিক্ষোভ সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।
সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম সাজেক থানা শাখার সভাপতি রুপক চাকমা এবং বক্তব্য রাখেন, পিসিপি সাজেক থানা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রুপায়ন চাকমা ও হিল উইমেন্স সভাপতি সাজেক থানা শাখা সভাপতি মিনা চাকমা।
সমাবেশে বক্তারা গতকাল ২ জুন শুক্রবার লংগদু উপজেলায় সেটলারদের দ্বারা সংঘটিত তিন টিলা, বাট্যেপাড়া, মানিকজোড় পাড়া ও বড়াদামে পাহাড়ি বাড়িতে লুটপাত ও অগ্নিসংযোগ এবং বৃদ্ধাকে পুড়িয়ে হত্যার জন্য প্রশাসনকে অভিযুক্ত করেন।
সমাবেশ থেকে বক্তারা, অবিলম্বে পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে সকল সেনাক্যাম্প প্রত্যাহারসহ ক্ষতিগ্রস্থদের যথাযথ ক্ষতিপূরণ ও হামলাকারিদের গ্রেফতার করে উপযুক্ত শাস্তি প্রদানের জোর দাবি জানান।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।