লামায় ইউপি সদস্যসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা নেয়ার আদেশ আদালতের

NewsDetails_01

বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোহাম্মদ হোসেন মামুন সহ ৫ জনের বিরদ্ধে থানায় মামলা নেওয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

ঘরের দরজাসহ আসবাবপত্র ভাংচুর, হামলা, নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের ফৌজদারী অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ ্আদেশ দেওয়া হয়। এতে অন্য অভিযুক্ত হলেন, কুমারী এলাকার কবিরার দোকানের বাসিন্দা নুরুল আমিন (৩০) ও নুরুল কাদের (২৭), বগাইছড়ি এলাকার বুড়িরজুমের বাসিন্দা রায়হান উদ্দিন অপু (২৫) ও চকরিয়া উপজেলার মানিকপুর ইউনিয়নের উত্তর সুরাজপুর এলাকার বাসিন্দা নুরুল কবির (৫০)।

NewsDetails_03

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, অভিযুক্তরা গত ১৪ জুন দিনগত রাত আনুমানিক ৩টার দিকে পরিকল্পিত ভাবে কাজী আবুল মোমিনের বসতঘরের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ঘরে থাকা রহিমা বেগম ও তার বোন তাছলিমা আক্তার লিজার উপর হামলা করে। এতে রহিমা বেগম ও তাছলিমা আক্তার লিজা আহত হন। এক পর্যায়ে অভিযুক্তরা ঘরে রক্ষিত নগদ ৬০ হাজার টাকা ও ৩ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়। ঘটনার কথা প্রকাশ করলে দুই বোনকে প্রাণে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকিও দেন অভিযুক্তরা। পরে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী রহিমা বেগম প্রতিকার চেয়ে সোমবার (২৪ জুন) উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফৌজদারী অভিযোগ করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে আদালতের বিচারক অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা গ্রহণের আদেশ দেন।
ভাংচুর, হামলা, লুটপাটের ঘটনায় উল্লেখিত অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা নেওয়ার আদেশের সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আইনজীবি মো. মামুন মিয়া বলেন, বাদীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা নেওয়ার জন্য লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জকে আদেশ দেন আদালত।

আরও পড়ুন