লামার বিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বাসায় অবৈধ বিদ্যুৎ !

বান্দরবানের লামা বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্রের স্টাফদের বিরুদ্ধে কোন প্রকার মিটার ব্যবহার না করে, চুরি করে বিদ্যুৎ ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে। সরকারি সাত স্টাফ পরিবার চুরি করে বিদ্যুৎ ব্যবহার করে আসছেন। বছরের পর বছর ধরে তারা বিদ্যুৎ চুরি করে আসলেও যেন দেখার কেউ নেই।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যুৎ অফিসের সাতজন স্টাফ স্বপরিবারে সরকারি আবাসিক কোয়ার্টারে বসবাস করছেন। এসব স্টাফদের ঘরে ব্যবহার হচ্ছে বিদ্যুৎ। ২২০ ভোল্টের লাইন থেকে নেয়া হয়েছে এ বিদ্যুৎ সংযোগ। প্রত্যেকের ঘরে পানির মোটর, ফ্রিজ, বৈদ্যুতিক হিটার, আইরন মেশিন, রাইস কুকার, ইলেক্ট্রনিক চুলাসহ অসংখ্য ফ্যান ও কারেন্টের বাল্ব জ্বলে। এ সময় তাদের ব্যবহৃত বিদ্যুৎ এর মিটারটি কোথায় এমন প্রশ্ন করলে কেউ তাদের মিটার দেখাতে পারেনি।
এক কর্মচারীর স্ত্রী জানায়, তার স্বামী ১৯৯৭ সাল থেকে এখানে চাকুরী করে, সে কখনও মিটার দেখেননি। লামা বিদ্যুৎ অফিসের লাইনম্যান মো. সাহাবুদ্দিনকে এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, আমাদের মিটার নেই। বিদ্যুৎ অফিসের হিসাব রক্ষক আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমাদের সকলের কোয়ার্টারের বিদ্যুৎ লাইন আবাসিক প্রকৌশলী লামা বিদ্যুৎ মিটার থেকে ব্যবহার হয়। লামা বিদ্যুতের আবাসিক প্রকৌশলী মো. অলিউল ইসলাম বলেন, মিটার না থাকলেও ১৫ কোড মোতাবেক আনুমানিক বিল দেয় স্টাফরা।
এই বিষয়ে চট্টগ্রাম বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী শামশুল আলম বলেন, কারোই মিটার বিহীন বিদ্যুৎ ব্যবহার করার সুযোগ নেই। তাছাড়া বিদ্যুৎ অফিসের স্টাফরা আবাসিক প্রকৌশলী লামা বিদ্যুৎ মিটার থেকে বিদ্যুৎ ব্যবহার করে থাকলে সেটা চরম অপরাধ। এ ঘটনায় দ্রুত তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।