লামায় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের হামলা: আতঙ্কে নয় গ্রামের মানুষ

বান্দরবানের লামা উপজেলায় সংঘবদ্ধ একটি পাহাড়ের সন্ত্রাসী গ্রুপ বসতঘর ও দোকানে হামলা চালিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। হামলায় মো. মোস্তফা নামের এক ব্যক্তি আহত হন। মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার লামা সদর ইউনিয়নের বৈল্লারচর ও ঠাকুরঝিরি পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর ইউনিয়নের বৈল্ল্যারচর, মেউলারচর, বরিশাল পাড়া, এম. হোসেন পাড়া, চিউনি পাড়া, লক্ষণ ঝিরি, ঠাকুরঝিরি, বেগুনঝিরি ও পাহাড়পাড়ার মানুষের মাঝে আতংক বিরাজ করছে। নিরাপত্তার স্বার্থে ওই এলাকায় একটি সেনাবাহিনী ক্যাম্প স্থাপনের দাবী জানিয়েছেন স্থানীয়রা। বুধবার সকালে স্থানীয় সেনাবাহিনীর একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এলাকাবাসী সূত্র জানায়, গত ৪ আগষ্ট রবিউল আলম ভূঁইয়া’র নেতৃত্বে পুলু মং মার্মা নামের এক সন্ত্রাসীকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেয় স্থানীয়রা। এতে ক্ষিপ্ত হয় ওই সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী গ্রুপটি। এক পর্যায়ে মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে ৩০-৪০ জনের সন্ত্রাসী গ্রুপটি ভারী অস্ত্রেসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ঠাকুরঝিরি ও বৈল্ল্যারচর এলাকায় হানা দেয়। এ সময় তারা মজিবুর, জাহের উদ্দিন, আবদুর রশিদ, জাহাঙ্গীর আলমের দোকানে লুটপাট চালিয়ে নগদ টাকা, মোবাইল ও দোকানের মালামাল নিয়ে যায়। পরে রবিউল আলম ভূঁইয়ার বাড়িতে হামলা চালিয়ে দরজা জানালা ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা। যাওয়ার সময় মোস্তফা নামের এক ব্যক্তিকে লোহার রড় দিয়ে পিটিয়ে আহত করে তারা।
ভুক্তভোগী রবিউল আলম ভূঁইয়া জানান, সন্ত্রাসী পুলু মার্মাকে আটক করে থানায় সোপর্দ করার কারণে সন্ত্রাসীরা তার বাড়িতে হামলা চালায়। পরে হামলার খবর পেয়ে পাশের লোকজন এগিয়ে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। সেনাবাহিনীর পোশাকের মত ইউনিফর্ম পরিহিত ও অত্যাধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত ছিল সন্ত্রাসীরা।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক জনপ্রতিনিধি বলেন, আমাদের জান-মালের নিরাপত্তা নেই। সন্ত্রাসীরা একইভাবে আবারো হামলা করতে পারে। তাই নিরাপত্তার স্বার্থে এলাকায় একটি সেনাবাহিনী ক্যাম্প স্থাপনের জোর দাবী জানাচ্ছি।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন বলেন, পুলু মার্মাকে আটকের জের ধরে সন্ত্রাসীরা এলাকায় হামলা চালিয়েছে। হামলার ঘটনা পুলিশ ও সেনাবাহিনীকে জানানো হয়েছে।
এ বিষয়ে লামা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আপ্পেলা রাজু নাহা সাংবাদিকদের বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। পুলু মার্মাকে আটকের জের ধরে সন্ত্রাসীদের এ তৎপরতা বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।