লামায় আগুনে পুড়ে গেল দুই বসতঘর

লামায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছাচিং প্রু মার্মা
বান্দরবানের লামা উপজেলায় আগুন লেগে দুইটি কাঁচা বসতঘর সম্পুর্ণ ছাই হয়ে গেছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি ইউনিয়ন সদর বাজারে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্তরা দাবী করেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হঠাৎ তোয়াজ মিয়ার (৬০) বসতঘরে আগুন জ্বলে ওঠে। মুহুর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা আশপাশে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় ঘন্টা ব্যাপী আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। ততক্ষণে মোমেনা বেগম (২৫) ও তোয়াজ মিয়ার (৬০) বসতঘর দুটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
ক্ষতিগ্রস্ত তোয়াজ মিয়ার ছেলে মো. কলিম উল্লাহ রিপন বলেন, আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ ঘরে আমার বাবা-মা থাকত। বৃহস্পতিবার সকালে তারা আরেক জনের বাড়িতে গেলে ঘরে আগুন লাগে।
লামা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স’র স্টেশন অফিসার নয়ন জীব চাকমা বলেন, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। আগুনে পুড়ে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ লাখ টাকা বলে ধারনা করা হয়েছে। ঘটনার সময় বাড়িতে কেউ না থাকায় কেউ হতাহত হয়নি। দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে পুরো বাজার পুড়ে যেত।
আগুন লেগে দুই বসতঘর পুড়ে ক্ষয়ক্ষতির সত্যতা নিশ্চিত করে রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছাচিং প্রু মার্মা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর নির্দেশে ক্ষতিগ্রস্ত দুই পরিবারকে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে তাৎক্ষনিকভাবে ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।