লামায় কোয়ান্টাম কসমো স্কুলের শিক্ষার্থীদের গাড়ি খাদে : ১৬ জন আহত

লামায় জীপগাড়ি খাদে পড়ে আহত কয়েকজন
বান্দরবানের লামা উপজেলায় একটি জীপগাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাহাড়ি খাদে পড়ে ৪ শিক্ষক ও ১২ শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে উপজেলার লামা-সুয়ালক সড়কের ডিসি মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, শিক্ষক কাইছার জাহিদুল হাসান, শাহা আলম, ফাতেমা বেগম, আক্তার, ছাত্রী উহাইয়ে (১০), বেদি (১৩), আয়েশা (১০), রেশমী (১১), আদিলা (১১), রুবাইয়া (১৭), প্রতিভা (১৩), শাহানাজ (১১), জেসমিন আক্তার (১৩), জুঁই (১১), নাদিয়া (১৩), খতিজা (১৮)।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আহতদের মধ্যে আশঙ্কাজনক তিন জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার ও অপর ৩জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। খবর পেয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি, গজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বাথোয়াইচিং মার্মা, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আপ্পেলা রাজু নাহা আহতদেরকে দেখতে হাসপাতালে যান।
স্থানীয় সূত্র আরো জানায়, উপজেলার সরই ইউনিয়নস্থ কোয়ান্টাম কসমো স্কুল এন্ড কলেজের ৪ শিক্ষক ও ১২জন শিক্ষার্থী উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক টিটিএন্ড ডিসি মাঠে আয়োজিত গ্রীস্মকালীণ ফুটবল টুর্ণামেন্টে খেলায় অংশ গ্রহণ শেষে একটি জীপগাড়ি (ঢাকা-ল ৩৫১) যোগে ফিরছিলেন। গাড়িটি সড়কের ডিসি মোড এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে ছেড়ে আসা আরেকটি গাড়িকে সাইড দিতে গিয়ে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রায় দুই শত ফুট পাহাড়ি খাদে পড়ে যায়। এতে গাড়িতে থাকা ৪ শিক্ষক ও ১২ জন শিক্ষার্থী আহত হন।
কোয়ান্টাম কসমো স্কুল কলেজের শিক্ষক শাহা আলম বলেন, গ্রীস্মকালীণ ফুটবল খেলায় অংশ গ্রহণ করে লামার সরই ফেরার সময় দুর্ঘটনাটি ঘটে।
স্থানীয়দের সহযোগিতায় সেনাবাহিনী এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্যরা আহতদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এর মধ্যে আশঙ্কাজনক খতিজা, জাহিদুল ইসলাম ও আক্তারকে কক্সবাজার ও জেসমিন, জুঁই ও নাদিয়াকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ঘটনার পর গাড়ি চালক মো.আনোয়ার হোসেন পালিয়ে যায়।
লামা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক মো. শফিউর রহমান মজুমদার বলেন, আহতদের মধ্যে ৬ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবাহী জীপগাড়ি পাহাড়ি খাদে পড়ে শিক্ষক শিক্ষার্থীসহ ১৬জন আহত হওয়ার সত্যতা লামা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আপ্পেলা রাজু নাহা নিশ্চিত করেন।

আরও পড়ুন
3 মন্তব্য
  1. Nuthowain Marma বলেছেন

    উজান মারমা দেখ

  2. Nuthowain Marma বলেছেন

    উজান মারমা দেখ

  3. Nuthowain Marma বলেছেন

    উজান মারমা দেখ

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।