লামায় জোর করে বিয়ের দেয়ার চেষ্টা করায় স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা

জোর করে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করায় বান্দরবানের লামা উপজেলায় রুবিনা আক্তার (১৫) নামের এক স্কুল ছাত্রী বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন। উপজেলা সরই ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি আন্ধারী মুজিবরের দোকান এলাকায় এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। রুবিনা আক্তার আন্দারী মুজিবের দোকান পাড়ার বাসিন্দা রবিউল হোসেনের মেয়ে। সে সরই উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত ছিল।

সূত্র জানায়, কয়েক দিন আগে অভিভাবকরা রুবিনা আক্তারের বিয়ে ঠিক করেন। এতে অমত পোষন করেন রুবিনা আক্তার। কিন্তু মতামত ছাড়াই জোর করে বিয়ের সব আয়োজন করেন স্বজনেরা। এক পর্যায়ে এসব মেনে নিতে না পেরে রবিবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে রুবিনা আক্তার অভিমানে নিজ ঘরে বিষপান করেন। পরে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় ক্যয়াজুপাড়া বাজারের একটি ফার্মেসিতে চিকিৎসা করার পর রুবিনা আক্তারের অবস্থার আরো অবনতি হলে কাছাকাছি লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন স্বজনেরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রুবিনা আক্তার।

রুবিনা আক্তারের কয়েকজন বান্ধবী জানায়, সে লেখাপড়ায় আগ্রহী ছিল। অভিভাবকরা মতের বিরুদ্ধে বিয়ের আয়োজন করায় রুবিনা বিষপান করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ক্যয়াজুপাড়া পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ মো. শফিউল আলম বলেন, ঘটনাটি খুবই দু:খ জনক। ঘটনার তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।