লামায় ঝগড়া থামাতে গিয়ে মৃত্যু !

বান্দরবানের লামা উপজেলায় ঝগড়া থামাতে গিয়ে ‘হার্ট অ্যাটাকে (হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে)’ আক্তার হোসেন (৫৩) নামে এক বাগান কেয়ারটেকারের মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার সরই ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি এলাকা আমির হামজা পাড়ার সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলীর রাবার বাগানে ঘটনাটি ঘটেছে। আক্তার হোসেন চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার শিলকুট ইউনিয়নের চরইত্যা পাড়ার বাসিন্দা মৃত আলী চানের ছেলে।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে আক্তার হোসেন স্বপরিবারে সরই ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলীর রাবার বাগানের কেয়ারটেকার হিসেবে রয়েছেন। রোববার দিনগত রাত ১০টার দিকে আক্তার হোসেনের মেয়ের স্বামী জিয়াউল হকের সঙ্গে বাগানে কর্মরত বাদশা নামে এক ব্যক্তির ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে আক্তার হোসেন ঝগড়া মীমাংসার চেষ্টা করলে বাদশা উত্তেজিত হয়ে জিয়াউল হক ও আক্তার হোসেনকে গালমন্দসহ কিল-ঘুষি মারেন। এতে আক্তার হোসেন হঠাৎ মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্বজনেরা দ্রুত উদ্ধার করে কাছাকাছি পদুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক আক্তার হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পর অভিযুক্ত বাদশা পালিয়ে যান।

স্থানীয়দের ধারণা,আক্তার হোসেন খুব রাগী মানুষ ছিলেন। সম্ভবত ঝগড়ার সময় বাদশা গালমন্দ করায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি।

মৃত আক্তার হোসেনের মেয়ে মোর্শেদা বেগম বলেন,‘ঝগড়ার সময় বাদশা গালমন্দ ও ঘুষি মারলে আমার বাবা হঠাৎ মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে দ্রুত উদ্ধার করে কাছাকাছি পদুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

এ বিষয়ে স্থানীয় ক্যায়াজুপাড়া পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ মো. শফিউল আলম বলেন, ‘মৃত আক্তার হোসেনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বান্দরবান সদর মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে লাশের শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি।’

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।