লামায় ডিপ টিউবওয়েল থেকে নি:সৃত হচ্ছে গ্যাস

বান্দরবানের লামা উপজেলায় নলকূপ থেকে নি:সৃত হচ্ছে গ্যাস । উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ইয়াংছা হেডম্যানপাড়া বৌদ্ধ বিহারের ও আবদুস সালাম মেম্বারের ডিপ টিউবওয়েলের পাইপ দিয়ে গত এক বছর ধরে এ গ্যাস নির্গত হচ্ছে । আর বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও এক বছরেও কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি বলে জানান জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয়রা ।

সরজমিনে জানা যায়, স্থানীয় বাসিন্দাদের পানীয় জলের সংকট নিরসনের জন্য সাত বছর আগে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ইয়াংছা হেডম্যান পাড়াস্থ বৌদ্ধ বিহারে একটি ডিপ টিউবওয়েলের স্থাপন করে। নলকূপটি স্থাপনের পর থেকেই পাইপ দিয়ে অনবরত পানি ঝরে। কড়া লোনা স্বাদের কারণে এ পানি কেউ পান করেন না। গোসল করলেও গায়ে চুলকানি হয়। কেবলমাত্র হাত-পা ধোয়ার কাজে এ পানি ব্যবহৃত হয় বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।

উপজেলার হেডম্যানপাড়া বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ উ: ওয়াইন্দাশিরি ভিক্ষু জানায়, গত বছরের প্রথম দিকের কোন এক রাতে বিদ্যুৎ না থাকায় মোমবাতি নিয়ে পানি নিতে টিউবওয়েলের পাইপের পানির ধারে গেলে হঠাৎ পানির উপরিভাগে বাতির আগুন লাগা মাত্রই দাউ-দাউ করে আগুন জ্বলে ওঠে। পরে বিষয়টি স্থানীয় হেডম্যান, ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ও চেয়ারম্যানকে অবহতি করি। কিন্তু এক বছরেও ডিপ টিউবওয়েল থেকে নির্গত গ্যাসের ব্যাপের কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি ।

এদিকে, স্থানীয় মৌজা হেডম্যান নিংমং মার্মা ও ইউপি সদস্য আপ্রুচিং মার্মা বলেন, গ্যাস নির্গত হওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে আমরা দিয়াশলায়ের কাঠি দিয়ে আগুন লাগিয়ে দেখেছি টিউবওয়েলের পানির উপরে আগুন জ্বলছে। এতে বুঝা যায় সেখানে গ্যাস উঠছে। নির্গত গ্যাস সংরক্ষণে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ জরুরী।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাকের হোসেন মজুমদার জানায়, ডিপ টিউবওয়েলের থেকে গ্যাস নির্গতের বিষয়টি আমরা ভূতাত্ত্বিক বিভাগকে অবহিত করেছি।

টিউবওয়েলের দিয়ে পানির পাশাপাশি গ্যাস নির্গত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিন ওয়ান নু জানান, টিউবওয়েলের পাইপ দিয়ে গ্যাস বের হওয়ার খবর শোনা গেছে। আমারা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছি। এ ব্যাপারে পেট্রো বাংলা এবং খনিজ সম্পদ মন্ত্রনলয়কে জানানো হবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।