লামায় ত্রাণ পেলো খেটে খাওয়া ৪ হাজার ৫০০ পরিবার

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’র পক্ষ থেকে বান্দরবানর পার্বত্য জেলা পরিষদের ব্যবস্থাপনায় ত্রাণ পেলো লামা উপজেলার খেটে খাওয়া ৪ হাজার ৫০০ পরিবারের মানুষ। এর মধ্যে পৌরসভা এলাকার ৯টি ওয়ার্ডের ১ হাজার ৩৫০ পরিবার ও ৭টি ইউনিয়নে ৩ হাজার ১৫০ পরিবার ত্রাণ পায়। দেয়া হয় প্রতি পরিবারকে ৮কেজি করে চাল, ১ কেজি করে ডাল ও ১ কেজি করে লবন।

আজ শুক্রবার (৩ এপ্রিল) বিকালে খেটে খাওয়া মানুষগুলোর ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম শুরু করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা জামাল, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষী পদ দাশ ও ফাতেমা পারুল, নির্বাহী অফিসার নূর এ জান্নাত রুমি, পৌরসভা মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাথোয়াইচিং মার্মা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাহেদ উদ্দিন ও মিল্কি রানী দাশ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ কান্তি দাশ প্রমুখ।

ত্রাণ বিতরণের সত্যতা নিশ্চিত করে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ফাতেমা পারুল বলেন, প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে গত ২৫ মার্চ থেকে বান্দরবানের লামা উপজেলাকে লক ডাউন করে দেয় স্থানীয় প্রশাসন। এতে গৃহবন্দি হয়ে পড়ে চরম দুর্ভোগে পড়েন উপজেলার একটি পৌরসভা ও সাতটি ইউনিয়নের খেটে খাওয়া মানুষগুলো। ঠিক তখনিই এসব মানুষের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে জেলা পরিষদ উপজেলার জন্য ৩৬ মেট্রিক টন চাল, ৪.৫০ মেট্রিক টন ডাল ও ৪.৫০ মেট্রিক টন লবন বরাদ্দ দেয়।

ত্রাণ বিতরণকালে সবাইকে করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য লক ডাউন মেনে চলার পাশাপাশি জন সমাবেশ এড়িয়ে চলাসহ স্বাস্থ্য সম্মত পরামর্শ মেনে চলার আহবান জানান প্রশাসনের কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিরা।

আরও পড়ুন
Loading...