লামায় বন্যহাতির আক্রমনে প্রতিবন্ধী নিহত : ৫ বসতঘর তছনছ

বান্দরবানের লামা উপজেলায় একদল বন্যহাতির তান্ডবে সরই ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি পুইট্টারঝিরি ও আজিজনগর ইউনিয়নের পূর্বচাম্বী আমতলী পাড়ার ৫টি বসতঘর তছনছ হয়েছে, হাতির আক্রমণে নিহত হন রহিমা বেগম (২০) নামের এক বাক প্রতিবন্ধী। এ সময় কলা বাগান ও বীজতলার ক্ষতিসাধন করে। ঘটনার পর স্থানীয়দের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে।

সূত্র জানায়, একদল বন্যহাতি মঙ্গলবার দিবাগত রাতে সরই ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে নেমে পড়ে। হাতিগুলো প্রথমে পাড়ার বাসিন্দা আবুল মিয়ার বসতঘর ভাংচুর শুরু করে। পরে একে একে বিভিন্নজনের বসতঘর ভাংচুর করে। এ সময় হাতির আক্রমন টের পেয়ে বাক প্রতিবন্ধী রহিমা বেগম আত্মরক্ষার জন্য ঘর থেকে বের হলে হাতির কবলে পড়েন। এতে হাতির আক্রমনে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

আজিজনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন বলেন, এখনো হাতিগুলো এলাকায় অবস্থান করায় লোকজন এখন চরম আতঙ্কে রয়েছে। আবারও যে কোন মুহুর্তে তান্ডব চালিয়ে জান ও মালের ক্ষতিসাধন করতে পারে।
এ বিষয়ে লামা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এস এম কায়চার জানান, উপজেলার সরই ও আজিজনগর ইউনিয়নের কয়েকটি পাড়ায় বন্যহাতির দল তান্ডব চালিয়েছে বলে খবর পেয়েছি। হাতি দ্বারা নিহত প্রতিবন্ধী যুবতী ও ক্ষতিগ্রস্তদেরকে বন বিভাগের পক্ষ থেকে বিধি মোতাবেক ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

এদিকে লামা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো. আলমগীর জানায়, হাতির আক্রমণে নিহত প্রতিবন্ধী যুবতীর লাশ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত,পাহাড়ে বন উজার করার কারনে খাদ্য ও আবাস সংকটের কারনে জেলার লামা, আলীকদম,নাইক্ষ্যংছড়ি ও সদর উপজেলায় প্রতিনিয়ত হাতির আক্রমনে নিহত ও আহত হবার ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।