লামায় ভাইয়ের গর্ভবর্তী স্ত্রীকে ধর্ষণ করে গাছে বেঁধে রাখলেন ভাসুর !

বান্দরবানের লামা উপজেলায় এক প্রবাসীর গর্ভবতী স্ত্রীকে হাত পা বেঁধে ধর্ষণ, মারধর ও বসতঘরে লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার রূপসীপাড়া ইউনিয়নের বৈদ্যভিটায় এলাকায় বুধবার দিনগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নির্যাতিতা প্রবাসীর স্ত্রী বাদী হয়ে স্বামীর সৎ ভাই সহ দুই জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তবে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে এ ধর্ষণ ও বসতঘরে লুটপাটের নাটক সাজানো হয়েছে বলে দাবী করেন অভিযুক্ত জয়নাল আবেদীন।

অভিযোগে জানা যায়, দুই শিশুসহ বৈদ্যভিটা এলাকাস্থ নিজ বসতঘরে থাকতেন ওই প্রবাসীর স্ত্রী। বুধবার দিনগত রাত দুইটার দিকে প্রকৃতির ডাকে ঘর থেকে বের হলে মুখ চেপে ধরে প্রবাসীর স্ত্রীকে ঘরের পেঁছনে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এ সময় দুর্বৃত্তরা প্রবাসীর দুই শিশুকে ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে। পরে দুর্বৃত্তরা ঘরের পেছনে নিয়ে হাত পা বেঁধে প্রবাসীর স্ত্রীকে নির্যাতন ও মারধর করে। শুধু তাই নয়, এ সময় দুর্বৃত্তরা বাড়ির আলমারি, ওয়ারড্রপ ও সোকেইচ ভেঙে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকারও নিয়ে যায় বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় গৃহবধূরা প্রবাসীর বাড়ির পাশের টিউবওয়েল থেকে পানি আনতে গেলে ঘটনা জানাজানি হয়। বুধবার বিকালে এ ঘটনায় বৈদ্যভিটা এলাকার মৃত তরব আলীর ছেলে জয়নাল আবেদীনসহ অজ্ঞাত আরেকজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন নির্যাতিতা প্রবাসীর স্ত্রী।

এ বিষয়ে লামা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ধর্ষণ ও লুটপাটের ঘটনায় প্রবাসীর স্ত্রী বাদী হয়ে দুই জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। ঘটনার তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।