লামায় সম্মানি ভাতা পেল ২১২ জন হেডম্যান ও কারবারী

বান্দরবানের লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি বলেছেন, হেডম্যানদেরকে সরেজমিন পরিদর্শন করেই ভূমি সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রদান করতে হবে। এতে নতুন করে ভূমি বিরোধ সৃষ্টি হবেনা বরং দিন দিন বিরোধ কমে আসবে।

বুধবার দুপুরে উপজেলার হেডম্যান ও কারবারীদের ভাতা প্রদানকালে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় তিনি আরো বলেন, পাড়ার কারবারীগণ আন্তরিকতা নিয়ে কাজ করলে স্থানীয়ভাবে অনেক সমস্যার সমাধান সম্ভব। তাই পাড়া কারবারীদেরকে বিরোধ মিমাংসায় আরো মনযোগী হতে হবে।

এ সময় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইশরাত সিদ্দিকা, মৌজা হেডম্যান, কারবারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। শেষে নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি উপজেলায় কর্মরত ১৭টি মৌজার হেডম্যান এবং ১৯৫জন কারবারীর হাতে ১২ মাসের সম্মানী ভাতা তুলে দেন।

২৮৪ নং ইয়াংছা মৌজার বন্ধুক ঝিরি পাড়ার কারবারি উক্যচিং, হেডম্যান পাড়ার কারবারি উহ্লাচিং, পোপা মৌজার টিয়ার ঝিরি পাড়ার কারবারি অংক্যজাই, হেডম্যান পাড়ার বাম ত্রিপুরা, গজালিয়ার প্রংথো পাড়ার খ্যাইমা ত্রিপুরা বলেন, বিগত দিনে ভাতা প্রদানের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীরা জনপ্রতি ২ শত টাকা হারে উৎকোচ নিতেন। বর্তমানে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীরদেরকে কোন উৎকোচ দিতে হয়নি বলে খুশি লাগছে। এজন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান ভাতাপ্রাপ্ত হেডম্যান ও কারবারীরা।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।