লামায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করায় ৪ আওয়ামী লীগ নেতাকে অব্যহতি

কাল ১১ নভেম্বর আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার দায়ে বান্দরবানের লামা উপজেলার আজিজনগর ইউনিয়নের ৪ আওয়ামী লীগ নেতাকে অব্যহতি প্রদান করা হয়েছে।

বহিস্কৃত নেতারা হলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি রফিক আহাম্মদ চৌধুরী, কার্য নির্বাহী সদস্য একরামুল হক বাবুল, আজিজনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম কানন ও মো. জসিম উদ্দিন। ১০ নভেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলামের স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, দেশে দ্বিতীয় দফার ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন ইসি সচিব মো. হুমাযুন কবীর খোন্দকার। এই দফায় ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয় ১১ নভেম্বর। এ তফশীল ঘোষনার পর আজিজনগর ইউনিয়ন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী রশিদ আহমদ চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৪ নেতা এ স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে প্রচার প্রচারণা করেন। পরে ২ নভেম্বর বির্তকিত ও বিদ্রোহী নেতাকর্মীদের বিষয়ে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুর রহিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে জেলা ও উপজেলা নেতৃবৃন্দের নিয়ে বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় আজিজনগরের ৪ নেতা নৌকা প্রতীকের পক্ষে নিরলসভাবে কাজ করার লিখিত অঙ্গীকার প্রদান করার পরও স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন মর্মে প্রতিয়মান হওয়ায় দলীয় সকল সাংগঠনিক কার্যক্রম হতে অব্যহতি প্রদান করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২য় ধাপে অনুষ্ঠিতব্য এ নির্বাচনের ঘোষিত তফশীল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র যাছাই বাছাই অনুষ্ঠিত হয় ২০ অক্টোবর, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ছিল ২৬ অক্টোবর, ২৭ অক্টোবর প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।
নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার দায়ে আওয়ামী লীগের ৪ নেতাকে অব্যহতি
প্রদানের সত্যতা লামা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম নিশ্চিত করেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।