শনিবার মধ্যরাত রাত থেকে কাপ্তাই হ্রদে মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

21898546104_028413a060_bশনিবার মধ্যরাত রাত থেকে রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে আবার মাছ শিকারের নিষোধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হচ্ছে। গত ১২ মে থেকে কাপ্তাই হ্রদে অনির্দিষ্টকালের জন্য মাছের সুষ্ঠু প্রাকৃতিক প্রজনন, বংশ বিস্তার ও উৎপাদন বাড়াতে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সর্ববৃহৎ কৃত্রিম জলরাশি কাপ্তাই হ্রদে সব ধরনের মাছ শিকার, আহরণ, বাজারজাত ও পরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন।
প্রায় সাড়ে তিন মাস তা বলবৎ রাখার পর প্রজনন মৌসুম সুষ্ঠুভাবে শেষ হওয়ায় প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মো. সামসুল আরেফিন এ সংক্রান্ত এক সভায় ২০ আগষ্ট মধ্যরাত থেকে কাপ্তাই হ্রদে পুনরায় উন্মুক্তভাবে মাছ শিকার, আহরণ, বাজারজাতকরণও পরিবহন করা যাবে বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
জেলা প্রশাসক বলেন, এ মৌসুমে মাছের সুষ্ঠু প্রাকৃতিক প্রজনন, উৎপাদন ও বংশ বিস্তার সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। তাই কাপ্তাই হ্রদে মাছ ধরার ওপর জারি করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
এদিকে টানা প্রায় সাড়ে তিন মাস পর্যন্ত কর্মহীন থাকার পর আবার কর্মচাঞ্চল্য ফিরে পাচ্ছেন হ্রদে মাছের ওপর নির্ভরশীল প্রায় ২৩ হাজার জেলে। জেলেরা জানান, হ্রদে মাছ শিকারের ওপর নিষেধাজ্ঞার কারণে তাদের এতদিন ধরে বেকার বসে থাকতে হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে আবার কর্মচাঞ্চল্য ফিরে পাচ্ছেন তারা।বিএফডিসির তথ্য সূত্রে জানা গেছে, কাপ্তাই হ্রদে মাছের ওপর নির্ভরশীল প্রায় ২৩ হাজার জেলে। এছাড়া মৎস্য ব্যবসায়ী ও পরিবহন শ্রমিকসহ রয়েছেন আরও বহু মৎস্যজীবী। সব মিলিয়ে প্রায় ১ লাখ মৎস্যজীবী নির্ভরশীল কাপ্তাই হ্রদের মাছের ওপর।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।