শিশু ধর্ষন চেষ্টার মামলায় ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধের ১০ বছরের কারাদন্ড

সাত বছরের শিশু ধর্ষন চেষ্টার মামলায় রাঙামাটিতে গোপাল কৃঞ্চ নাথ নামে ষাটোর্ধ্ব এক বৃদ্ধকে ১০ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। এছাড়া ভুক্তভোগী পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা। একই সঙ্গে আদালত ভুক্তভোগী পরিবারকে ৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ প্রদান ও অনাদায়ে আরো দুই বছর সশ্রম কারাদন্ড দেওয়ার নির্দেশ দেন।

আজ বুধবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে রাঙামাটির নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ ই এম ইসমাঈল হোসেন এই রায় প্রদান করেন। সাজাপ্রাপ্ত আসামি গোপাল কৃঞ্চ নাথ দক্ষিন সাবেক রাঙুনিয়ার মৃত অন্নদা চরণ নাথের ছেলে। তার কাউখালী উপজেলা বাজারে উষা আর্ট নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছিল।

সুত্র থেকে জানা যায়, গত ২১ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে আসামী ভিকটিম শিশুটিকে বিকেলে খেলার সময় পানি আনার কথা বলে কৌশলে ডেকে কাউখালী পোয়া বাজার এলাকায় মীর সুপার মার্কেটে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করলে শিশুটির চিৎকারে ইসলামী ব্যাংকের অফিস সহকারী মোঃ জাবেদ বের হয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করেন। বিষয়টি জানাজানি হলে একই দিন শিশুটির বাবা কাউখালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলা চলাকালীন মোট ৯ জন সাক্ষ্য প্রদান, যুক্তি তর্ক উপস্থাপন শেষে বুধবার রায় প্রদান করেন আদালত।

রায়ে বলা হয়, আসামী গোপাল কৃষ্ণ নাথ তার বিকৃত যৌন লালসা চরিতার্থ করার জন্য ৭ বছরের শিশু ভিকটিমকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছেন। সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ হতে প্রমাণিত হয়েছে, ইসলামী ব্যাংকের অফিস সহায়ক তখন বের হয়ে না আসলে ঐ দিন শিশুটি ধর্ষনের শিকার হতেন। বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় আসামীকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর ৯ (৪) খ ধারা মোতাবেক ১০ বছরের সশ্রম কারাদন্ড এবং অতিরিক্ত ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি সাইফুল ইসলাম অভি বলেন, রাঙামাটির জন্য এটি একটি যুগান্তকারী রায় হয়েছে। আদালতের রায়ে আমরা খুবই সন্তুষ্ট, আশা করছি এ রায় দ্রুত কার্যকর হবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।