সন্তু লারমার আগমনকে কেন্দ্র করে বান্দরবানে কালো পতাকা উত্তোলন

সন্তু লারমার আগমনকে কেন্দ্র করে কালো পতাকা উত্তোলন, চিত্রটি বান্দরবান শহরের সার্কিট হাউজ সড়ক থেকে ধারন করা। ছবি-বাটিং মার্মা
সন্তু লারমার আগমনকে কেন্দ্র করে কালো পতাকা উত্তোলন, চিত্রটি বান্দরবান শহরের সার্কিট হাউজ সড়ক থেকে ধারন করা। ছবি-বাটিং মার্মা
তিন দিনের সফরে বান্দরবানে পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা ওরফে সন্তু লারমা। আর তার সফরকে কেন্দ্র করে বান্দরবানে পার্বত্য গণ পরিষদ, বাঙালী ছাত্র পরিষদসহ বিভিন্ন বাঙালী সংগঠন শহরে কালো পতাকা উত্তোলন করেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার বিকেল ৫টায় রাঙ্গামাটি থেকে সড়ক পথে বান্দরবান এসে সার্কিট হাউসে অবস্থান করেন সন্তু। তার এই সফরের বিরোধীতা করে সকাল থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন করে বাঙালী সংগঠনগুলো, দুপুরের দিকে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে কালো পতাকা উত্তোলন করে।
এদিকে তার সফরকে ঘিরে যে কোন ধরনের অনাকাংখিত পরিস্থিতি মোকাবেলায় শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে,মাঠে নামানো হয়েছে ডিবি পুলিশকে। শহরের বালাঘাটা, কালাঘাটা, সার্কিট হাউসসহ বিভিন্ন স্থানে পুলিশের বিপুল সংখ্যক সদস্য অবস্থান করছে ।
আরো জানা গেছে, তিন দিন বান্দরবান অবস্থান কালে সোমবার সকালে বোমাং চীফ রাজা উ চ প্রু চৌধুরীর সাথে সাক্ষাৎ করার কথা রয়েছে আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান সন্তু লারমার। এছাড়া ও স্থানীয় বিভিন্ন কর্মসূচীতে যোগদান করার কথা রয়েছে তার ।
এদিকে গত ১৩ জুন রাতে জেলার রোয়াংছড়ির জামছড়ি থেকে জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য মং পু মার্মাকে অপহরণ করা হয়। আর এ ঘটনার জন্য জেএসএস এর নেতাকর্মীদের নামে বান্দরবান সদর থানায় মামলা হওয়ার প্রেক্ষিতে বান্দরবানের জেএসএস নেতারা গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপনে। তাই সন্তু লারমার বান্দরবান আগমনকে কেন্দ্র করে এই প্রথম জেএসএস এর নেতাকর্মীদের মাঠে দেখা যায়নি।
বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকউল্লাহ বলেন, সফরকে কেন্দ্র করে জেলার আইন শৃংখলা ঠিক রাখতে সব ধরণের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।