সন্ত্রাসীদের দৌরাত্ম্যে পাহাড়ের মানুষ শান্তিতে নেই : ফিরোজা বেগম চিনু এমপি

রাঙামাটি জেলা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন ও বেবিট্যাক্সী চালককল্যাণ সমিতির ত্রিবার্ষিক সাধারণ সভায় ফিরোজা বেগম চিনু এমপি
সন্ত্রাসীদের দৌরাত্ম্যে পাহাড়ের মানুষ কেউ শান্তিতে নেই। বিগত ৩বছরেও সিএনজি চালক মো.রতন অপহরণ হয়েছে এখনও পর্যন্ত তার হদিস পাওয়া যায়নি। রতন এর ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে কিন্তু পুলিশ প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। শনিবার রাঙামাটি জেলা অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়ন ও বেবিট্যাক্সী চালক কল্যাণ সমিতির ত্রিবার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
শনিবার সকালে শহরের রিজার্ভবাজারের শিশু নিকেতন স্কুলের মিলনায়তনে সংগঠনের সভাপতি আলী আহমদ অলির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মুছা মাতব্বর, রাঙামাটি পৌরসভা মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের চট্টগ্রাম অঞ্চলের সাধারণ সম্পাদক অলি আহমদ, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল।
সভায় সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি ফিরোজা বেগম চিনু আরো বলেন,এখানে আঞ্চলিক দলগুলোর অবৈধ অস্ত্রের ঝনঝনানিতে এখানকার মানুষ নিরাপত্তাহীনতায় বাস করছে। তারা মুখে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের কথা বললেও অবৈধ অস্ত্র দিয়ে পাহাড়ে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, হত্যা, গুমসহ আধিপত্য বিস্তার করছে।
চট্টগ্রাম বিভাগীয় অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, রাঙামাটি জেলা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা সিনিয়র সাংবাদিক শামসুল আলম, হাসান মাহমুদ বাদশা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটি জেলা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন ও বেবিট্যাক্সী চালককল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. শহীদুজ্জামান মহসীন রোমান।
ফিরোজা বেগম চিনু আরো বলেন,সম্প্রতি সন্ত্রাসীরা জুরাছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অরবিন্দু চাকমাকে গুলি করে হত্যা, হত্যার উদ্দেশ্যে বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রাসেল মারমা এবং রাঙামাটি জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ঝর্না চাকমার ওপর বর্বর হামলা করেছে উল্লেখ করে বলেন, আর যদি ফের কোনো হত্যার ঘটনা ঘটে তাহলে কখনও সহ্য করা হবে না। তাদের ভাষা যদি তাই হয়, জনগণ তাতে পাল্টা জবাব দিতে বাধ্য হবে, আমরা শান্তি ও সম্প্রীতি চাই। তিনি অবিলম্বে পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারসহ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যৌথবাহিনী অভিযান পরিচালনার দাবি জানান।
রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র ও জেলা যুবলীগের সভাপতি আকবর হোসেন চৌধুরী বলেন, অবৈধ অস্ত্রধারীদের সন্ত্রাসে পাহাড়ে পাহাড়ি বাঙালি কেউ নিরাপদ নন। পাহাড়ের সবাই অশান্তিতে। অবিলম্বে পাহাড়ে সন্ত্রাস নির্মূল করে পার্বত্য চট্টগ্রামে সম্প্রীতি স্থাপনসহ শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে। অন্যথায় আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে পাহাড়ের মানুষ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গড়ে তুলতে বাধ্য হবে। তখন তাদের আর পালানোর পথ থাকবে না।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. Shoaib Tiseen বলেছেন

    so sad

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।