সম্মানী ভাতা পেলো লামার ২৬০ খতিব, ইমাম ও মুয়াজ্জিন

সংকটে পাশে পার্বত্য জেলা পরিষদ

বান্দরবানের লামা পৌরসভা ও সাতটি ইউনিয়নের ২৬০ জন খতিব, ইমাম ও মুয়াজ্জিন পেলেন সম্মানী ভাতা। পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’র নির্দেশে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ এ সম্মানী ভাতার অর্থ প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

আজ বুধবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে জেলা পরিষদ গেষ্ট হাউজ মিলনায়তনে এ সম্মানী ভাতার অর্থ বিতরন উদ্ভোধন করা হয়। পৌরসভা এলাকার ৩৭জন, লামা সদর ইউনিয়নের ১৪জন, রুপসীপাড়া ইউনিয়নের ২১জন, আজিজনগর ইউনিয়নের ৩৫জন, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ৭৬জন, ফাইতং ইউনিয়নের ৩২জন, সরই ইউনিয়নের ৩৩জন ও গজালিয়া ইউনিয়নের ১২জন খতিব, ইমাম ও মুয়াজ্জিন এ ভাতা পেয়েছেন।

সম্মানী প্রদানকালে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা জামাল, পৌর মেয়র জনাব জহিরুল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য ফাতেমা পারুল, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বাথোয়ইচিং মার্মা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বিজয় আইচ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মিল্কি রানী দাশ, পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ রফিক, সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

এই ব্যাপারে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ফাতেমা পারুল বলেন, বুধবার উপজেলার পৌরসভা এলাকার ৩৭জন ইমাম, খতিব ও মুয়াজ্জিনের মধ্যে মধ্যে সম্মানী ভাতার টাকা প্রদান করা হয়েছে। ইউনিয়নের সম্মানীর টাকা স্ব স্ব ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মহোদয়ের নির্দেশে বরাদ্দকৃত সম্মানী ভাতা প্রদানের পাশাপাশি সবাইকে করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য লকডাউন মেনে চলাসহ স্বাস্থ্য সম্মত পরামর্শ মেনে চলতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান পাড়া জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা শহীদুল ইসলাম বলেন, জাতির এই ক্রান্তি লগ্নে আমাদের মন্ত্রী মহোদয় আমাদেরকে সম্মানিত করেছেন। এজন্য আমরা অনেক খুশি হয়েছি। আমরা সবাই মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব ক্য শৈ হ্লা’র জন্য দোয়া করি।

উল্লেখ্য, বান্দরবানের ৭টি উপজেলার মোট ৭২২ মসজিদের খতিব, ইমাম ও মুয়াজ্জিনরা এ সম্মানী ভাতা পাচ্ছেন।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।