হাতির আক্রমণে নিহত ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান

বান্দরবানের আলীকদমের তৈন রেঞ্জের আওতাধীন এলাকায় হাতির আক্রমণে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার ও ব্যক্তিদের মাঝে আর্থিক ক্ষতিপূরণের চেক বিতরণ করলেন লামা বনভিাগ।

আজ বুধবার (৩০ জুন ) সাড়ে ১১ টায় উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চেক বিতরণ করা হয়।ক্ষতিগ্রস্থ ২৫ ব্যক্তি ও পরিবারকে ৪ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে ও নিহত দুই ব্যক্তিকে ৩ লক্ষ করে ৬ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে জানান তৈঞ্জ কর্মকর্তা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সায়েদ ইকবালের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কালাম। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন লামা বনবিভাগের সহকারী বন কর্মকর্তা গিয়াজ উদ্দিন,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কফিল উদ্দিন,চৈক্ষ্যং ইউপি চেয়ারম্যান ফেরদৌস রহমান,রৈঞ্জ কর্মকর্তা জহির উদ্দিন মিনার চৌধুরী ও বিভিন্ন বন কর্মকর্তাসহ ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তি ও পরিবার।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোঃ আবুল কালাম বলেন, খাদ্যের অভাবে লোকালয়ে আসলেও হাতি চলে যাবে। সেসময় টুকু দেওয়ার প্রয়োজন ছিল স্থানীয়দের। আপনাদের যে ক্ষতি হয়েছে তা পূরণ করা সম্ভব নয়। হাতির চলাচল পথ বন্ধ করবেন না। হাতি শান্ত স্বভাবের প্রাণী।

সমাপনী বক্তব্যে সভাপতি বলেন, দিন দিন মানুষ পাহাড়ে আবাসস্থল করছে, ফলে অসংখ্য ফলজ গাছ কাটা হচ্ছে ও হাতিসহ বন্যপ্রাণীর আবাস স্থল ধ্বংস হচ্ছে। তাতে করে পাহাড়ের বসবাসরত প্রাণীরা খাদ্য সংকটে পড়ছে। তাই বাধ্য হয়ে লোকালয়ে আসলেও হাতি কাউকে স্বেচ্ছায় আক্রমণ করেনা। তাই হাতির চলার পথে বাধা দেবেন না। পাশাপাশি উপস্থিত সবাইকে বর্ষা মৌসুমে বেশী বেশী গাছ রোপন করার পরামর্শ দেন।

গত ২৩ জানুয়ারী মধ্যরাতে হাতি লোকালয়ে চলে আসলে হাতির চলার পথে বাধা ও হাতির গায়ে আগুন দেওয়ার চেষ্টা করলে হাতির আক্রমণে হুমায়ন কবির ও মনসুর আলম নিহত হন ও অনেকে আহত,অনেকের ঘরবাড়ী ভেঙ্গে দেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।