কাপ্তাইয়ে চুরির পৃথক মামলায় আটক ৫

কাপ্তাইয়ে চুরির পৃথক মামলায় আটকর্কৃতরা
রাঙামাটি জেলার কাপ্তাই থানায় পৃথক দুই চুরির মামলায় কাপ্তাই থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে চুরির সরঞ্জাম সহ ৫ জনকে গতকাল রবিবার আটক করার খবর পাওয়া গিয়েছে।
থানা সুত্রে জানা যায়, গত ৩০ই জানুয়ারি কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুল আলমের বাসায় চুরি হয়। পরে তিনি বাদি হয়ে কাপ্তাই থানায় ৪৫৭/৩৮০ দন্ড বিধিতে চুরি মামলা দায়ের করেন। এদিকে কর্ণফুলী পেপার মিলস লি. এর নদীর পাশের কারখানা হতে ৩৫ থেকে ৪০ হাত পরিমাণ তামার তার চুরির ঘটনায় কেপিএম এমডি ড. এম.এম.এ কাদের বাদি হয়ে কাপ্তাই থানায় ৩৭৯ দন্ড বিধিতে চুরির মামলা দায়ের করেন। এদিকে দুই চুরির মামলায় পাঁচ জনকে ফেরিঘাট এলাকা হতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে চোরাইকৃত মালামাল এবং চুরি করার আধুনিক যন্ত্রপাতি সহ কাপ্তাই থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নূরুল আলম ও এসআই মিজানের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে আটক করেছে কাপ্তাই থানা পুলিশ।
ইউএনও বাসভবনে চুরির ঘটনায় সম্পৃক্ত আটকতৃতরা হলেন, রাঙ্গুনিয়ার ফেরিঘাট এলাকার মৃত আব্দুর রবের পুত্র আব্দুস সালাম (৩৫), ফেরিঘাট পুরাতন মসজিদ এলাকার মো. দুলালের পুত্র রিয়াজ উদ্দিন (২৪), রাঙ্গুনিয়ার মধ্যম পারুয়ার মৃত আহম্মেদ মিয়ার পুত্র মোবারক হোসেন বারেক (২৫)। এদিকে কেপিএম এর তার চুরির মামলায় ফেরিঘাট এলাকা হতে রাঙ্গুনিয়ার ফেরিঘাট এলাকার নব গ্রাম হতে দেলোয়ার হোসেনের পুত্র মনা (২৬) ও চাঁদপুরের কচুয়া থানাধীন মেগডাইরের পূর্ব পাড়া এলাকার মৃত মোকাদ্দেস আলীর পুত্র মফিজুল ইসলাম (৪০) কে আটক করেছে কাপ্তাই থানা পুলিশ।
কাপ্তাই থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নূরুল আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তাদের চুরিকৃত মালামাল ও চুরির আধুনিক সরঞ্জামাদি সহ আটক করা হয়েছে। এদিকে গতকাল রবিবার বিকালে তাদের রাঙামাটি আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।