ম্যালেরিয়া রোগের ভয়ংকর ঝুঁকিতে বান্দরবান

লামায় ম্যালেরিয়া নির্মূল ও প্রতিরোধ বিষয়ক এডভোকেসি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরী
বান্দরবানের লামা উপজেলায় মরণ ব্যাধি ম্যালেরিয়া রোগ নির্মূল বিষয়ক এডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল কর্মসূচির উদ্যোগে আজ মঙ্গলবার দপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. উইলিয়াম লুসাইয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এডভোকেসি সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরী। স্বাস্থ্য পরিদর্শক সমীরণ বড়ুয়ার সঞ্চালনায় সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি, সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো.সায়েদ ইকবাল, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা যতীন্দ্র মোহন মন্ডল, সহকারি তথ্য অফিসার মো.রুহুল আমিন চৌধুরী, আনসার ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক মো. মিজানুর রহমান, থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. গিয়াস উদ্দিন বিশেষ অতিথি ছিলেন। এতে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল কর্মসূচীর কর্মকর্তা খলিলুর রহমান ও বেসরকারী সংস্থা ব্র্যাকের বান্দরবান জেলা কর্মকর্তা দিলিপ কুমার। এ সময় জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল কর্মসূচীর কর্মকর্তা ডা. নজরুল ইসলাম মাল্ডিমিডিয়ার মাধ্যমে ম্যালেরিয়া নির্মূল ও প্রতিরোধসহ যাবতীয় তথ্য তুলে ধরেন।
এডভোকেসি সভায় বক্তারা বলেন, পার্বত্য এলাকায় ম্যালেরিয়া রোগের প্রবণতা থাকায় অতীতে এ রোগে আক্রান্ত হয়ে অনেক মানুষ মারা গেছে। পরে সকলের তৎপরতায় এ জেলায় ম্যালেরিয়া রোগের সংখ্যা কমে আসলেও গত বছরের এক জরিপে সারা দেশে ২৭ হাহজার ম্যালেরিয়া রোগি সনাক্ত হয়। তম্মধ্যে বান্দরবানেই সনাক্ত হয়েছে ১৮ হাজার মানুষ। এ হিসেবে ভয়ংকর ম্যালেরিয়া রোগের ঝুঁকিতে রয়েছে বান্দরবান। তাই তৃণমূল পর্যায়ে জনসচেতনতা বাড়ানো ও বিনামূল্যের কীটনাশকযুক্ত মশারী ব্যবহারের শতভাগ নিশ্চিতসহ প্রয়োজনীয় কার্যক্রম আরও বাড়াতে হবে। শেষে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী এসডিজি অর্জনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে ম্যালেরিয়া মুক্ত করার ঘোষণা দেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. Kazal Das বলেছেন

    ১০-১৫ বছর আগের তুলনায় বর্তমানে ম্যালেরিয়া নাই বললেই চলে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।