কাপ্তাইয়ে ৫ লাখ টাকার সেগুন কাঠ কেটে নেওয়ার অভিযোগ

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার ৩ নং চিৎমরম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য এস এম ফরিদ এর বাগান হতে রাতের অন্ধকারে ১৩ টি মূল্যবান সেগুন কাঠ কেটে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় তিনি আজ সোমবার (৩ জানুয়ারী) বিকেল ৪ টায় কাপ্তাই উপজেলাধীন চন্দ্রঘোনা থানায় অভিযুক্ত চিৎমরম মুসলিম পাড়ার বাসিন্দা জাহাঙ্গীর আলম সহ আরোও অজ্ঞাত ১০ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেন।

অভিযোগে তিনি জানান, চিৎমরম ইউনিয়ন এর ৫ নং ওয়ার্ডের মুসলিম পাড়া পাহাড় এলাকায় তাঁর রেকর্ডিয় সাড়ে ৩ একর সেগুন গাছের বাগান আছে। স্থানীয়দের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন চিৎমরম ইউনিয়ন যুবদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও বর্তমান ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য জাহাঙ্গীর আলম গত ৩১ ডিসেম্বর তারিখে তাঁর দলবল নিয়ে রাতের অন্ধকারে আমার সেগুন বাগানে ডুকে ১৩ টি সেগুন গাছ কেটে নিয়ে যায়। যাহার মূল্য ৫ লাখ টাকা। পারিবারিক কাজে আমি চট্টগ্রামে থাকায় গত ২ জানুয়ারী ঘটনাটি জানতে পারি।

এই বিষয়ে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলম এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি দাবি করেন, ঐ বাগানের গাছ গুলো তাঁর কেনা। এবং কেনার বিষয়ে তিনি স্ট্যাম্প দেখাতে পারবেন। তিনি আরোও জানান, রাতের অন্ধকারে তিনি গাছ কাটেন নাই, দিনের বেলায় তাঁর লোকজন নিয়ে তিনি গাছ গুলো কেটেছেন।

চন্দ্রঘোনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার চৌধুরী অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এই বিষয়ে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।