কাপ্তাই জেটি ঘাটের একি অবস্থা !

বিলাইছড়ি উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তা সুপর্না বাড়ৈ, শিক্ষক বিপ্লব বড়ুয়া, কৃষি বিভাগের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ডি কে রুবেল, জয়সেন তংচঙ্গ্যা তাদের কর্মস্থল, আবার কেউ বিলাইছড়ি উপজেলায় বসবাস করার সুবাধে অফিস কিংবা পারিবারিক কাজে রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার জেটিঘাট এলাকা দিয়ে নৌ পথে যাতায়াত করে। কিন্ত জেটিতে নামার সিঁড়ির পথে এত বেশী ময়লার স্তুপ পড়ে আছে, যা হতে বিশ্রি দূর্গন্ধ ছড়াচ্ছে, ফলে এই পথে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণকে নাকে হাত চেপে রেখে চলাচল করতে হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তাঁরা।

জানা যায়, প্রতিদিন শত শত যাত্রী নৌ পথে বিলাইছড়ি এবং রাঙামাটিতে যাতায়াতের জন্য এই সিড়ি ব্যবহার করে। এইছাড়া কাপ্তাই লেক, কাপ্তাই সেনাবাহিনী পরিচালিত লেক ভিউ পিকনিক স্পট এবং বিলাইছড়ি উপজেলার বিভিন্ন নান্দনিক ঝর্না উপভোগ করতে অসংখ্য পর্যটক আসা যাওয়া করে এই পথে। সিঁড়ির পাশে এই ময়লার স্তুপ দেখে অনেকেই এ ময়লার স্তুপের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে ক্ষোভ ঝেড়েছেন।

কাপ্তাই জেটিঘাট বোট সমিতির লাইনম্যান শীতল সরকার বলেন, এটা অপসারণের দায়িত্ব বাজার কমিটির। কারন এইখানে সবচেয়ে বাজারের ময়লা ফেলা হয় বেশী।

কাপ্তাই জেটিঘাট বাজার সমিতির সাবেক সভাপতি লোকমান আহমেদ বলেন, এটা অবশ্যই পরিস্কার হওয়া উচিত। তবে জেটির সাথে সংশ্লিষ্ট জেটি কন্ট্রাকটরের দায়িত্ব এটা পরিস্কার করা।

৪ নং কাপ্তাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আবদুল লতিফ ও জেটিঘাট কন্ট্রাকটর সমিতির সদস্য ইউপি মেম্বার সজিবুর রহমান বলেন, আমরা অচিরেই এই ময়লার স্তুপ অপসারণ করবো।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।