খাগড়াছড়ির ৭ নিহতের ঘটনায় ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

খাগড়াছড়ির স্বনির্ভর এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে ৭ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় আজ শনিবার বিকালে জেলার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কে প্রধান করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক শহীদুল ইসলাম বলেন, তদন্ত কমিটিকে আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে এই ঘটনারতদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন, খাগড়াছড়ি সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল আওয়াল, খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. নয়ন ময় ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ সহকারী পরিচালক জসিম উদ্দিন মজুমদার।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, খাগড়াছড়ি স্বনির্ভর এলাকায় আজ সকালে সন্ত্রাসীদের গুলিতে ইউপিডিএফ প্রসিত গ্রুপ সমর্থিত পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের (পিসিপি) খাগড়াছড়ি শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমাসহ ৭ জন নিহত হয়। এছাড়া সন্ত্রাসীদের গুলিতে ৩ জন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আহত হয়েছে।
নিহতরা হলো, ইউপিডিএফ সমর্থিত পিসিপি খাগড়াছড়ি শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা, সহ সাধারণ সম্পাদক এলটন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুবফোরামের সহ সভাপতি পলাশ চাকমা, মহালছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সহকারী জীতায়ন চাকমা, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র রূপন চাকমা, খাগড়াছড়ি সদরের পেরাছড়া এলাকার বাসিন্দা শন কুমার চাকমা ও বিএসসি প্রকৌশলী পানছড়ি উপজেলার উল্টাছড়ি গ্রামের ধীরাজ চাকমা। আহতরা হলো, পিসিপি কর্মী সোহেল চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কর্মী সমর চাকমা ও সখীধন চাকমা।
খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) শাহাদাত হোসেন টিটো বলেন, আজ সকাল সাড়ে ৮টার দিকে স্বণির্ভরস্থ ইউপিডিএফ’র খাগড়াছড়ি জেলা অফিস ও সিএনজি স্টেশন এলাকা থেকে হঠাৎ করে গোলাগুলির শব্দ শোনা যায়। স্বণির্ভর বাজারের ইউপিডিএফ কার্যালয় ও আশপাশে অবস্থান কর্মীদের লক্ষ্য করে সন্ত্রাসীরা গুলি ছুড়ঁতে থাকে। এসময় আত্মরক্ষার্থে ইউপিডিএফর লোকজনও গুলি ছুঁড়ে। খবর পেয়ে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ৩ জনের মরদেহ এবং ৬ জনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। আহতদের খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক আরও ৩ জনকে মৃত ঘোষণা করেন।
তিনি আরো বলেন, আহত বাকী ৩জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। হামলার সময় পালিয়ে পথে রাস্তার উপর পড়ে দিয়ে মাথায় আঘাত প্রাপ্ত শন কুমার ত্রিপুরাকে দুপুরে হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩টা ২৫ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার পর খাগড়াছড়ি জেলা জুঁড়ে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে, ঘটনার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে জেলা শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে বিজিবি ও পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, খাগড়াছড়ির স্বনির্ভর ও পেরাছড়ায় সন্ত্রাসী হামলায় নিজেদের কর্মী ৭ জন নিহত হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে আগামী ২০ আগস্ট খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় আধাবেলা শান্তিপূর্ণ সড়ক অবরোধ পালন করার ঘোষণা দিয়েছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।