রাঙামাটির ৬৪ ভাগ মানুষ স্যানিটেশনের আওতাভুক্ত

রাঙামাটিতে ইকো টয়লেট ও টেকসই স্যানিটেশন ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষন
রাঙামাটির সাধারন জনগন শতকরা ৬৪ ভাগ স্যানিটেশনের আওতায় এসেছে বলে জানিয়েছেন রাঙামাটি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগ। আজ সোমবার রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে দুদিনব্যাপী রাঙামাটিতে ইকো টয়লেট ও টেকসই স্যানিটেশন ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষনে এসব কথা জানিয়েছেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগ।
রাঙামাটি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর এর নির্বাহী প্রকৌশলী অনুপম দে’র সভাপতিত্বে প্রশিক্ষন কর্মশালায় উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা,মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা সাদেক আহম্দ, জাতীয় স্যানিটেশন প্রকল্পের(৩য় পর্যায়) প্রকল্প পরিচালক মো: আব্দুল মোন্নাফ, জেলা পরিষদ সদস্য মো: জানে আলম জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার উত্তম খীসা।
রাঙামাটি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগ এর অয়োজনে সমন্বিত ওয়াশ প্রশিক্ষনে বক্তারা বলেন,পার্বত্য এলাকায় স্যানিটেশনের কভারেজ বাড়নোর জন্য ইকোসান টয়লেট নামে একটি নতুন প্রযুক্তি পাইলটিং বেসিসে রাঙামাটিতে স্থাপন করা হচ্ছে।
সভায় নির্বাহী প্রকৌলী অনুপম দে বলেন,এ পাইলট প্রকল্পে রাঙামাটি দশ উপজেলার প্রতিটি উপজেলায় ২ টি করে সর্বমোট ২০ টি টয়লেট স্থাপন করা হবে।
প্রশিক্ষনে প্রশিক্ষকরা বলেন, প্রতিটি পরিবারের সকলে স্বাস্থ্য সম্মত ল্যাটিন ব্যবহার করবে। ল্যাট্রিন তৈরী করতে হবে যাতে বাহির থেকে মল দেখা না যায়। অপর্যাপ্ত স্যানিটেশন ব্যবস্থার কারনে শিশু থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সের মানুষের ডায়রিয়া,কলেরা ও বিভিন্ন পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। প্রশিক্ষনে জানানো হয়, অপর্যাপ্ত স্যানিটেশন,হাইজিন এবং দুষিত পানি শতকরা ৮০% রোগের কারন। শুধুমাত্র ডায়রিয়ার কারনে প্রতি বছর দেশে পাঁচ বছর বয়সের কম বয়সী লক্ষাধিক শিশু মারা যায়।
প্রশিক্ষনের প্রথমদিনে বরকল,রাঙামাটি সদর,কাউখালী, নানিয়ারচর ও জুরাছড়ির ইউপি চেয়ারম্যান,উপজেলা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার,বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধি, পার্বত্য চ্ট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের পাড়া কর্মী, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী ওয়াসিউর রহমান, উপসহকারী প্রকৌশলী ও নলকুপ মেকানিকরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রশিক্ষনে প্রশিক্ষক হিসেবে ছিলেন, জাতীয় স্যানিটেশন প্রকল্পের(৩য় পর্যায়) সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট কর্মকর্তা মো: বাবুল আক্তার,উপ-প্রকল্প পরিচালক মো: আতিকুল ইসলাম।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।