রুমায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ করায় হয়রানির আশংকা ইউপি মেম্বারের !

বান্দরবানের রুমা সদর ইউপি চেয়ারম্যান শৈমং মারমা এর দুর্নীতি ও সরকারি অর্থ আত্মসাতের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে জেলা প্রশাসকসহ সরকারি বিভিন্ন অফিসে অভিযোগ দাখিল করে পাল্টা হয়রানি ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলার আশঙ্কা করছেন ইউপি মেম্বারগণ। এ মিথ্যা মামলা থেকে রক্ষা পেতে নিরাপত্তা চেয়ে গত ২১ জুলাই রুমা থানায় লিখিত আবেদন করেন ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার শৈহ্লা প্রু মারমা।
আবেদন পত্রে উল্লেখ বলা হয়, সম্প্রতি মেম্বারগণ ইউপি চেয়ারম্যান দুর্নীতি সংক্রান্ত অভিযোগ দাখিল করায় তাঁর বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যান শৈমং মারমা মেম্বার এর ঠিকানায় অবৈধ অস্ত্র, মাদক এবং টাকার জাল নোটসহ অবৈধ মালামাল গোপনে রেখে মামলা মোকদ্দমায় ফাসানোর আশংকা করেন ইউপি মেম্বার শৈহ্লা প্রু মারমা। এ মেম্বারের বিরুদ্ধে আগেও হয়রানিমূলক মামলা হয়েছে বলে দাবি করা হয়।
রুমা থানা অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত) মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন মেম্বার এর অভিযোগটি এসডিআর হিসেবে নথিভূক্ত করেছি। তা খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এব্যাপারে জানতে চাইলে রুমা সদর ইউপি চেয়ারম্যান শৈমং মারমা বলেন, অভিযোগ দেয়ার মতো ইউপি সদস্যদের সাথে কিছুই হয়নি। তারপরও মেম্বাররা থানায় জিডি করে থাকেন, তাহলে তো তাদের ব্যাপার বলে জানালেন তিনি।
প্রসঙ্গত; সম্প্রতি ২নং রুমা সদর ইউপি চেয়ারম্যান শৈমং মারমার বিরুদ্ধে দূর্নীতি, চাঁদাবাজি ও প্রকল্প টাকাসহ ভিজিডি-ভিজিএফ চাল আত্মসাতের অভিযোগ এনে জেলা প্রশাসকের নিকট অভিযোগ দাখিল করা হয়। এতে তিন মহিলা মেম্বার সহ ১১জন ইউপি সদস্য স্বাক্ষর করেন। ওই সময় পার্বত্য মন্ত্রী ও দূর্ণীতি দমন কমিশিনের পরিচালকসহ একাধিক সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তাদের বরাবরে অভিযোগটি দেয়া হয়। তবে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দায়িত্বশীল কোনো কর্তৃপক্ষ অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত শুরু হয়নি।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।